বুধবার,২৩শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং


সিরিয়ায় মানুষ মরছে ভাতে ও পানিতে


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৩.১২.২০১৪

syrian-children-refugees

পূর্বাশা ডেস্কঃ

গৃহযুদ্ধ শুরু হবার পর থেকে এ পর্যন্ত সিরিয়ায় নিহতের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মধ্যেপ্রাচ্যে অবস্থান আরো পাকাপোক্ত করতে পশ্চিমা দেশ থেকে শুরু করে বেশ কয়েকটি আরব দেশের প্রয়োজন সিরিয়ার বাশার আল আসাদ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা। অন্যদিকে ইরান সিরিয়াকে যতটুকু সম্ভব সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। গত চার বছরে অন্তত ২ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে। এসব হতাহতের ঘটনা সিরিয়ার সরকার ও বিদ্রোহী উভয় পক্ষে ঘটেছে।

সিরিয়ার অবজারভেটরি ফর ইউম্যান রাইটস’এর পরিচালক রামি আব্দেল রহমান বলেছেন, ২০১১ সালের মার্চ থেকে এ পর্যন্ত ২ লাখ ২ হাজার ৩’শ ৫৪ জন নিহত হবার ঘটনা লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ১ লাখ ৩০ হাজার সেনা সদস্য রয়েছে। এছাড়া ৬৩ হাজার ৭৪ জন সাধারণ মানুষ ও আরো ১০ হাজার ৩৭৭ জন শিশু মারা গেছে। বিদ্রোহী মারা গেছে ৩৭ হাজার ৩২৪ জন এবং সিরিয়ার নাগরিক নন এমন বিদ্রোহী মারা গেছে ২২ হাজার ৬২৪ জন।

সিরিয়ার সরকারের তরফ থেকে বলা হচ্ছে নিহতদের মধ্যে ৪৪ হাজার ২৩৭ জন সেনা সদস্য, ২৮ হাজার ৯৭৪ জন ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্সের সদস্য, ৬২6096265523750943৪ জন হিজবুল্লাহ সদস্য, ২ হাজার ৩৮৮ জন সিরিয় সরকার সমর্থক রয়েছে। এছাড়া নিহত হয়েছে এমন ৩ হাজার ১১ জনের পরিচয় অজ্ঞাত। তবে আব্দেল রহমান বলছেন, যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ায় মৃতের সংখ্যা আরো বেশি হবে কারণ এমন কিছু সংঘর্ষ প্রবণ এলাকা রয়েছে যেখানে হতাহতের সংখ্যা নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি। তাছাড়া ৩ লাখ মানুষ কারাগারে রয়েছে এবং ২০ হাজার মানুষের কোনো হদিশ পাওয়া যাচ্ছে না। একই সঙ্গে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএস জঙ্গিদের হাতে হাজার হাজার মানুষ আটক রয়েছে।

সিরিয়া সংকট সমাধান করতে না পারায় আব্দেল রহমান আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কম দায়ী নয় বলে মন্তব্য করেন। ফলে সিরিয়ায় গণহত্যা অব্যাহত রয়েছে। একই সঙ্গে সিরিয়া থেকে প্রাণ বাঁচাতে ঘর বাড়ি ছেড়ে অন্তত ১৭ লাখ মানুষ আশে পাশের প্রতিবেশি দেশুগুলো যেমন জর্ডান,লেবানন, তুরস্ক, ইরাক এবং মিশরে আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির আওতায় যে খাদ্য সাহায্য সিরিয়ায় পাঠানোর কথা ছিল তা বাতিল হয়ে গেছে। তহবিলের অভাবে ওই খাদ্য সাহায্য পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। শীতে যখন রোগ শোক ও খাদ্যের অভাবে লাখ লাখ সিরিয় উদ্বাস্তু মৃত্যুর অপেক্ষায় প্রহর গুনছে ঠিক তখনি জাতিসংঘের এ খাদ্য সহায়তা বন্ধ হয়ে গেল। ংুৎরধহ-পযরষফৎবহ-ৎবভঁমববং

সিরিয়ায় জাতিসংঘ খাদ্য কর্মসূচির নির্বাহী পরিচালক এরথারিন কাজিন সাবধান করে দিয়ে বলেছেন, এ খাদ্য সাহায্য বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তা সিরিয় উদ্বাস্তুদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার উপর প্রচণ্ড আঘাত। যে সব দেশ সিরিয় উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দিয়েছে তারাও এ খাদ্য সাহায্য বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছে। গত তিন বছর ধরে জাতিসংঘ সিরিয় উদ্বাস্তুদের খাদ্য সাহায্য দিয়ে আসছিল। সিরিয় উদ্বাস্তুরা যে সব দেশে আশ্রয় নেয়ার পর খাদ্য বা অন্যান্য পণ্য সংগ্রহ করেছে এমন কেনা কাটা বাবদ দেশগুলোর অর্থনীতিতে গত ৩ বছরে ৮’শ মিলিয়ন ডলার যোগ হয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৬৪ মিলিয়ন ডলারের অভাবে জাতিসংঘ সিরিয়ার উদ্বাস্তু মানুষের জন্যে খাদ্য কর্মসূচি বন্ধ করতে বাধ্য হল।

এর আগে পশ্চিমা কয়েকটি রাষ্ট্র ও সৌদি আরব সহ বেশ কয়েকটি আরব দেশ সিরিয়া সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে বিদ্রোহীদের অস্ত্র ও অর্থ সাহায্য বাবদ মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার সাহায্য দেয়। তবে আইএস জঙ্গিরা সিরিয়ায় সরকার বিরোধী যুদ্ধের পাশাপাশি নতুন করে খিলাফত সৃষ্টির ঘোষণা দেয়ার পর এধরনের সাহায্যে ভাটা পড়ে। এমনকি আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়তে বিমান থেকে যুক্তরাষ্ট্র যেসব অস্ত্র সাহায্য দিচ্ছে তা জঙ্গিদের হাতেই চলে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

আরব নিউজ ও মিডিল ইস্ট মনিটর থেকে



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি