[bangla_day],[english_date]


৩০ হাজার টাকা হলেই ফিরবে দৃষ্টিশক্তি খোদেজার!


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
16.05.2018

ডেস্ক রিপোর্ট :

পাবনার চাটমোহর উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের সেনগ্রামের দরিদ্র আত্তাব খাঁ’র স্ত্রী খোদেজা বেগমে (৪৭) এর কাছে এখন রাত দিন সবই সমান। দিনমজুর স্বামী সহায় সম্বল বিক্রি করে চিকিৎসক দেখানোর পরেও ফেরেনি দৃষ্টি শক্তি। দুই ছেলে দিনমজুরী করে যা উপার্জন করে তাই দিয়ে সংসারে সবার মুখে অন্ন তুলে দিতে গিয়ে হিমশিম খান।

বাধ্য হয়ে ‘আত্তাব খাঁ এই বয়সেও বেছে নিয়েছেন ভাটা শ্রমিকের কাজ। জোটেনি কোনো ভাতার কার্ড বা সরকারী কোন সহযোগিতা। দরিদ্র পরিবারটির পাশে দাঁড়ায়নি কোন জনপ্রতিনিধি। হাতুড়ে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় বাম চোখের দৃষ্টি হারিয়েছেন প্রায় এক যুগ আগে। ডান চোখে ছানি পড়ে এবং রক্তনালি অনেকটা শুকিয়ে এখন পুরোপুরি দৃষ্টিহীন খোদেজা বেগম বাড়িতে বসে এখন অতীত স্মৃতি হাতড়ে বেড়ান তিনি।

তবে অনেক দেরি হওয়া সত্বেও খোদেজা বেগমের ডান চোখ অপারেশন করালে ফিরতে পারে দৃষ্টিশক্তি; এমনটাই জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ চক্ষু হাসপাতালের চিকিৎসক আবদুল্লাহ আল মামুন। চিকিৎসকের এমন কথা শুনে আশার আলো দেখতে শুরু করেছে খোদেজা বেগম ও তার পরিবার। ডান চোখের অপারেশন, লেন্স সংযোজন, ওষুধপত্র এবং চশমা বাবদ খরচ হবে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

এদিকে, এই সামান্য টাকা তাদের কাছে অসামান্য হয়ে দেখা দিয়েছে। কোথায় পাবেন টাকা ? বাধ্য হয়ে হাল ছেড়ে দিয়েছেন খোদেজা বেগমের পরিবার। চোখ ভাল থাকতে মাটি কাটার কাজ থেকে শুরু করে নানা রকম কাজ করেছেন খোদেজা বেগম। কিন্তু এখন দৃষ্টি হারিয়ে অসহায় জীবন-যাপন করছেন তিনি।

অশ্রুসিক্ত নয়নে আত্তাব আলী জানান, তিলে তিলে আমরা স্বামী-স্ত্রী মিলে গড়ে তুলেছিলাম সংসার। অভাবের তাড়নায় এই বয়সেও ভাটায় কাজ করছি। চিকিৎসক বলেছেন অপারেশন করলে ডান চোখ ভাল হবে। কিন্তু মানুষের কাছে আমার হাত পাততে খুব লজ্জা লাগে।

দৃষ্টিশক্তি হীন খোদেজা বেগম বলেন, ‘আমি আজ অসহায়, অন্যের কাছে বোঝা হয়ে গেছি। নাতি-নাতনিদের মুখ কেমন দেখিনি। আমার খুব শখ চোখ ভাল হলে নিজ হাতে খাবার বানিয়ে নাতি-নাতনিদের খাওয়াবো। কিন্তু চিকিৎসা করার সামর্থ্য আমার পরিবারের নাই!

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার অসীম কুমার বলেন, বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে অতিসত্ত্বর সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মাধ্যমে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করবো এবং পরিবারটির পাশে দাঁড়াবো।

সূত্রে:আমার সংবাদ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি