সোমবার,১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং


কুমিল্লা-৩; বিএনপি প্রার্থীর আয়করের নথি গায়েব করে মনোনয়ন বাতিলের অভিযোগ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৩.১২.২০১৮


ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী কেএম মুজিবুল হকের মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় দেয়া আয়করের নথি (কাগজপত্র) গায়েব করার মাধ্যমে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে আয়কর সনদ না থাকার অভিযোগে ওই প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর।

এ সময় বিএনপির ওই প্রার্থী কেএম মুজিবুল হক ক্ষোভ ও বিস্ময় প্রকাশ করে অভিযোগ করেন, মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় আয়কর সনদসহ সব কাগজপত্র দাখিল করা হলেও পরিকল্পিতভাবে তা গায়েব করার মাধ্যমে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, কুমিল্লা-৩ মুরাদনগর সংসদীয় আসনে বিএনপি দলীয় প্রার্থী কেএম মুজিবুল হক ২৮ নভেম্বর জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকের কাছে আয়কর সনদসহ সব প্রকার বৈধ কাগজপত্র সংযুক্ত করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় ওই প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা কাগজপত্র গায়েব করার আশঙ্কায় সব কাগজপত্রের স্থিরচিত্র এবং ভিডিও ফুটেজ ধারণ করে রাখেন। এছাড়াও এ সময় মনোনয়নপত্র জমাদান গ্রহণের কপিও দেয়া হয়।

সব কাগজপত্র সঠিকভাবে জমা দেয়া হলেও পরে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে আয়কর সংক্রান্ত কাগজপত্র গায়েব করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। রোববার যাচাই-বাছাইকালে কেএম মুজিবুল হকের ফাইলে আয়কর সংক্রান্ত একটি কাগজ নেই- এমন অভিযোগে রিটার্নিং কর্মকর্তা তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

কেএম মুজিবুল হক অভিযোগ করেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের টেক্স ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট, সম্পদের বিবরণসহ সব কিছুই হফলনামায় দেয়া হয়েছে। কাগজপত্র সঠিকভাবে দাখিল ও গ্রহণসহ সব কপি আমাদের কাছে সংরক্ষণ করা আছে। ষড়যন্ত্র করে আমার ফাইল থেকে আইটেন-বি নামক আয়করের একটি কাগজ গায়ের করে দেয়া হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর জানান, ইচ্ছেকৃতভাবে কারও কাগজপত্র সরিয়ে ফেলার বিষয়টি সঠিক নয়। কোনো প্রার্থী ইচ্ছে করলে নির্বাচনে কমিশনে এ বিষয়ে আপিল করতে পারবেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি