শনিবার,১৮ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং


মন্ত্রী ২৪, প্রতিমন্ত্রী ১৯, উপমন্ত্রী ৩ জন


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৬.০১.২০১৯

ডেক্স রিপোর্টঃ

মন্ত্রী ২৪- গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করেছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট। এ বিজয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট নতুন মন্ত্রিসভার আকার হচ্ছে ৪৬ সদস্য বিশিষ্ট।

এর মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী হচ্ছেন ৩ জন।সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় বঙ্গভবনে নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেবে। এর আগে নতুন মন্ত্রিসভায় কারা স্থান পাচ্ছেন, তাদের নাম জানাতে রোববার বিকেল ৫টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনে ২৯৮ আসনের মধ্যে ২৫৭টিতে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। জোটগতভাবে তারা পেয়েছে ২৮৮ আসন। অন্যদিকে তাদের প্রধান প্রতিপক্ষ বিএনপি ও তাদের জোট পেয়েছে মাত্র সাতটি আসন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এমপিরা ছাড়া গত বৃহস্পতিবার নবনির্বাচিত এমপিরা শপথ নেন। জয়ের পর টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট, টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন শেখ হাসিনা।

সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, মন্ত্রিসভায় একজন প্রধানমন্ত্রী থাকবেন এবং প্রধানমন্ত্রী যেভাবে নির্ধারণ করবেন, সেভাবে অন্যান্য মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রী থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের রাষ্ট্রপতি নিয়োগ দিয়ে থাকেন।

তবে মন্ত্রিসভার সদস্যদের সংখ্যার কমপক্ষে দশভাগের ৯ ভাগ সংসদ-সদস্যদের মধ্য থেকে নিয়োগ পাবেন। সর্বোচ্চ দশভাগের এক ভাগ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের মধ্য থেকে মন্ত্রিসভার সদস্য মনোনীত (টেকনোক্র্যাট) হতে পারবেন বলে সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি বঙ্গভবনে প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর শপথ পড়াবেন। এরপর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন রাষ্ট্রপতি। শপথের পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে দফতর বণ্টন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলে তারাই হবে দেশের নতুন সরকার। শপথ নেয়া পর্যন্ত আগের মন্ত্রিসভা বহাল থাকবে। নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলে আগের মন্ত্রিসভা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হয়ে যাবে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি বিএনপির বর্জনের মধ্যেই দশম জাতীয় সংসদের নির্বাচন হয়। ১২ জানুয়ারি গঠিত হয় নতুন মন্ত্রিসভা। তখন শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করে ৪৮ সদস্য বিশিষ্ট নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়।

ওই সরকারে প্রধানমন্ত্রী ছাড়া ২৯ জন মন্ত্রী, ১৭ প্রতিমন্ত্রী এবং দু’জন উপমন্ত্রী ছিলেন। পরে কয়েক দফা মন্ত্রিসভায় রদবদল আনা হলে শেষ পর্যন্ত মন্ত্রিসভার আকার দাঁড়ায় ৫২ সদস্যের। তবে নির্বাচনের আগে টেকনোক্র্যাট চারমন্ত্রীকে বাদ দেয়া হয়।

মন্ত্রী থেকেও যাদের টাকায় নির্বাচন করেছিলেন সৈয়দ আশরাফ

পাঁচ বছর মন্ত্রীসভায় থাকার পর ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যখন অংশ নেন, তখন তিনি নিজের আয় থেকে নির্বাচনে এক টাকাও খরচ করতে পারেননি সৈয়দ আশরাফ।

গত পাঁচ বছরে দেশের অনেক মন্ত্রী-এমপির সম্পদ কয়েক গুণ বাড়লেও সৈয়দ আশরাফকে তার আত্মীয়-স্বজনরা স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে ২৫ লাখ টাকা দেন নির্বাচনে খরচ করার জন্য। সেই টাকায় নির্বাচন করেন এবং জয়লাভ করেন তিনি।

দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জমা দেয়া তার হলফনামা থেকে নির্বাচনি খরচের এ তথ্য জানা যায়।

দশম জাতীয় নির্বাচনে আশরাফের জমা দেয়া হলফনামার ফরম-২১ থেকে জানা যায়, রাজধানীর গুলশানে পাঁচ কাঠার একটি প্লট এবং পৈতৃক সূত্রে কিশোরগঞ্জে ১টি ও ময়মনসিংহে একটি বাড়ি ছিল। আশরাফের একাদশ জাতীয় নির্বাচনে হলফনামায় জমা দেয়া ফরম ২১-এ দেখা যায়, পাঁচ বছরের ব্যবধানে এসব সম্পত্তি বাড়েনি, একই আছে।

দশম নির্বাচনের ফরম ২১ থেকে আরও জানা যায়, ২০১৩ সালে আশরাফের ব্যক্তিগত ঋণ ছিল ৯৮ লাখ টাকা। একাদশ জাতীয় নির্বাচনের হলফনামা থেকে জানা যায়, তিনি এই দেনা শোধ করতে পেরেছিলেন।

নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় নির্বাচনের হলমানার ফরম-২১ থেকে আরও জানা যায়, ২০০৮ সালে তার বছরে আয় ছিল ৬৮ হাজার টাকা, ৩ লাখ ৭৬ হাজার ৯০০ টাকা। ২০১৩ সালে বাৎসরিক আয় ছিল ৬ লাখ ৩৭ হাজার ২০০ টাকা এবং ব্যয় ছিল ২ লাখ ৭ হাজার ১৮০ টাকা। ২০১৮ সালে তার বার্ষিক আয় ছিল ১৩ লাখ ৫৭ হাজার ১০৮ টাকা আর খরচ ছিল ২৪ লাখ ১০ হাজার টাকা।

নাহিদ বাদ, শিক্ষামন্ত্রী হচ্ছেন ডা. দীপু মনি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে টানা তৃতীয়বারের মতো মন্ত্রিসভা গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আর নতুন মন্ত্রিসভায় বেশ কয়েকটি নাম বড় চমক। গুঞ্জন আছে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের বাদ পড়া নিয়েও। এই দায়িত্ব পেতে পারেন চাঁদপুর-৩ আসনের দীপু মনি।

গত দুই মেয়াদে শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে নানা সমালোচনার মুখে পড়েন সিলেট-৬ আসনের নুরুল ইসলাম নাহিদ। এবার তিনি দায়িত্ব নাও পেতে পারেন বলে আগে থেকেই আলোচনা ছিল। তিনি অন্য কোনো মন্ত্রণালয় পাচ্ছেন কিনা, এই বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নয়।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, নতুন মন্ত্রিসভার আকার হচ্ছে ৪৬ সদস্য বিশিষ্ট। এর মধ্যে পুরনোদের অনেকেই বাদ পড়তে পারেন। ঠাঁই পেতে যাচ্ছেন অনেক নতুন সংসদ সদস্য। এবার মন্ত্রী হচ্ছেন ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী হবেন ৩ জন।

রোববার (৬ জানুয়ারি) বিকেল ৫টায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন সদস্যদের নাম ঘোষণা করবেন। সোমবার (০৭ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টায় বঙ্গভবনে শপথ নেবে নতুন মন্ত্রিসভা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি