[bangla_day],[english_date]


৩৪ মাস কারাবাস শেষে জামিনে মুক্ত সাবেক এমপি রানা


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
09.07.2019

ডেস্ক রিপোর্টঃ

টাঙ্গাইলে আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমদ ও যুবলীগের দুই নেতার হত্যা মামলায় টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে তিনি টাঙ্গাইল কারাগার থেকে মুক্তি পান।

কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেলেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা। ৩৪ মাস পর আজ মঙ্গলবার সকাল পৌনে নয়টায় টাঙ্গাইল জেলা কারাগার থেকে বের হন তিনি। পরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন সাবেক সাংসদ।

এর আগে হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগের কাগজপত্র গতকাল সোমবার রাতেই কারাগারে পৌঁছায়। পরে সকালে তাকে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেন টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের সুপার আবুল বাশার। এ উপলক্ষে টাঙ্গাইল কারাগারের আশপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ২২ মাস পলাতক থাকার পর আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক হত্যা মামলার প্রধান আসামি আমানুর রহমান খান রানা ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইলের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। সে সময় আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

পরে কারাগারে থাকাকালেই দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় তার সম্পৃক্ততার বিষয়টি বের হয়ে আসে। সেই মামলাতেও তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এ ছাড়া কারাগার থেকে ঘাটাইলের এক ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার নির্দেশ দেওয়ার এক মামলায়ও অভিযুক্ত হন তিনি।

এর আগে উচ্চ আদালত থেকে ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় আমানুর জামিন লাভ করেন। সর্বশেষ গত সোমবার তিনি উচ্চ আদালত থেকে দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় জামিন পান। ফারুক হত্যা মামলায় আমানুর ছাড়াও তার অপর তিন ভাই টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান মুক্তি, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান কাকন ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সানিয়াত খান বাপ্পাও আসামি। তারা সবাই আত্মগোপনে আছেন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে আমানুর রহমান খান রানা টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসন থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন। এর সাত মাস পরেই ফারুক হত্যা মামলায় তার সম্পৃক্ততার বিষয়টি পুলিশি তদন্তে বের হয়ে আসে। ওই বছরের নভেম্বরে তিনি আত্মগোপন করেন।

২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর  হত্যা মামলায় রানা আত্মসমর্পণ করলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি