সোমবার,২৬শে আগস্ট, ২০১৯ ইং
  • প্রচ্ছদ » খেলা » বার্সার সঙ্গে ‘অবৈধ’ যোগাযোগের প্রমাণ মিলেছে গ্রিজমানের!


বার্সার সঙ্গে ‘অবৈধ’ যোগাযোগের প্রমাণ মিলেছে গ্রিজমানের!


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৬.০৮.২০১৯

ডেস্ক রিপোর্টঃ

দলবদল হয়ে গেলেও ফরাসি স্ট্রাইকার আতোয়াঁন গ্রিজমানের ট্রান্সফার ফি নিয়ে এখনো ঐকমত্যে পৌঁছাতে পারেনি সাবেক ক্লাব অ্যাটলেটিকো ও বর্তমান ক্লাব বার্সেলোনা। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ বাই আউট ক্লজ পরিশোধ না করেই গ্রিজমানকে নিয়ে গেছে বার্সেলোনা, অভিযোগ অ্যাটলেটিকোর। ব্যাপারটা নিয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগও করেছে তারা। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এল মুন্দো জানিয়েছে, অভিযোগের পক্ষে বিস্তারিত প্রমাণও আছে অ্যাটলেটিকোর কাছে!

বেশ কিছু দিন হলো অ্যাটলেটিকো ছেড়ে বার্সায় যোগ দিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার আতোয়াঁন গ্রিজমান। এর মধ্যে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ না খেললেও বার্সার জার্সি গায়ে বেশ কিছু প্রীতি ম্যাচ খেলে ফেলেছেন তিনি। তা হলে কী হবে? তাঁকে নিয়ে বার্সা-অ্যাটলেটিকোর নাটকের যে কোনো শেষই হচ্ছে না! নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট অর্থ পরিশোধ না করেই বার্সা নিয়ে গেছে গ্রিজমানকে, এমন অভিযোগ করেছে অ্যাটলেটিকো। সে অভিযোগের পক্ষে প্রমাণও রয়েছে বলে জানিয়েছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এল মুন্দো।

বার্সা বলছে, সঠিক অঙ্কের বাই আউট ক্লজ দিয়েই গ্রিজমানকে কেনা হয়েছে। অ্যাটলেটিকোর পাল্টা যুক্তি, মূল বাই আউট ক্লজ থেকে ৭২ মিলিয়ন পাউন্ড কম দিয়েছে বার্সা। আর এ দাম পরিশোধ না করলে গ্রিজমান যেন লা লিগায় আর খেলতে না পারে, সেই আবেদনও করেছে অ্যাটলেটিকো।

গ্রিজমানকে কেনার বিষয়টি বেশ কিছু দিন আগে আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। অ্যাটলেটিকোর বেঁধে দেওয়া ১০৮ মিলিয়ন পাউন্ডের বাই আউট ক্লজ ভেঙেই গ্রিজমানকে নিয়ে এসেছিল স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। তবে অ্যাটলেটিকোর দাবি, ১০৮ মিলিয়ন পাউন্ড নয়, গ্রিজমানের বাই আউট ক্লজ এখন ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ড। কারণ হিসেবে তারা বলেছে, গ্রিজমানের সঙ্গে বার্সেলোনা যখন চুক্তি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তখন গ্রিজমানের বাই আউট ক্লজ ১০৮ মিলিয়ন নয়, ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ড ছিল। গ্রিজমানের জন্য তাই আরও অর্থ দিতে হবে, এমনটাই দাবি অ্যাটলেটিকোর, ‘(গ্রিজমানের জন্য) যে পরিমাণ অর্থ জমা করা হয়েছে, সেটা তাঁর রিলিজ ক্লজ ভাঙার জন্য যথেষ্ট নয়। কারণ এটা পরিষ্কার, তাঁর মূল্য ১৮০ মিলিয়ন থেকে ১০৮ মিলিয়নে নেমে আসার আগেই তাদের দুই পক্ষের চুক্তি হয়ে গিয়েছিল।’

এই বছরের জুলাই মাসের আগ পর্যন্ত গ্রিজমানের বাই আউট ক্লজ ছিল ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ড, যেটা কি না জুলাইয়ের পর চুক্তি অনুযায়ী কমে ১০৮ মিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। মাস খানেক আগে গ্রিজমান অ্যাটলেটিকো ছাড়ার ঘোষণা দিলেও কোথায় যোগ দেবেন, সেটা বলেননি। গ্রিজমানের বার্সায় যোগ দেওয়ার বিষয়টা নিশ্চিত হয়েছে জুলাই মাসের ১ তারিখের পর। ফলে গ্রিজমানের বাই আউট ক্লজের ওই শর্তের পূর্ণ সুবিধা নিয়েছে বার্সেলোনা। অ্যাটলেটিকো দাবি করেছে, গ্রিজমান যখন অ্যাটলেটিকো ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন, তখনই বার্সার সঙ্গে তাঁর চুক্তির সবকিছু নির্ধারিত হয়ে গিয়েছিল। তাই ১০৮ মিলিয়ন পাউন্ড নয়, সম্পূর্ণ ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ডই দিতে হবে। আর অ্যাটলেটিকোকে যদি এই অর্থ পরিশোধ করা না হয়, তাহলে গ্রিজমান যেন লা লিগাতেই আর খেলতে না পারেন, সেই আবেদনও লা লিগার কাছে করে রেখেছে তারা। এখন শোনা যাচ্ছে, অ্যাটলেটিকোর দাবির পক্ষে যুক্তি প্রমাণও আছে।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এল মুন্দো জানিয়েছে, তারা এমন এক ই-মেইলের সন্ধান পেয়েছে, যে মেইলটি অ্যাটলেটিকোর দাবির সত্যতা প্রমাণ করতে পারে। গত মার্চে মেইলটা পাঠিয়েছিলেন গ্রিজমানের মুখপাত্রদের একজন, সেভান কারিয়ান। পাঠানো হয়েছিল গ্রিজমানের বোন মঁওদ ও বাবা অ্যালাইন গ্রিজমানের কাছে। অ্যাটলেটিকো ছেড়ে বার্সেলোনায় যোগ দিলে গ্রিজমান কত বেতন-বোনাস পাবেন, বিস্তারিত উল্লেখ ছিল সেই মেইলে। অর্থাৎ এটা নিশ্চিত, বাই আউট ক্লজ কমে যাওয়ার আগেই বার্সেলোনার সঙ্গে যোগাযোগ করা শুরু করে দিয়েছিলেন গ্রিজমানের মুখপাত্ররা। এল মুন্দো জানিয়েছে, এই মেইলের একটি কপি অ্যাটলেটিকোর প্রধান নির্বাহী মিগুয়েল অ্যানহেল গিল মারিনের কাছেও আছে। লা লিগার সামনে যে কপি উত্থাপন করলে ভালো ঝামেলায় পড়তে পারেন গ্রিজমান। ঝামেলায় পড়বে বার্সাও।

গ্রিজমান ও বার্সার বিপক্ষে অ্যাটলেটিকোর এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে বার্সেলোনাকে অবশ্যই অতিরিক্ত ৭২ মিলিয়ন পাউন্ড পরিশোধ করতে হবে। না করলে বার্সার খেলোয়াড় হিসেবে লা লিগায় নিবন্ধন করতে পারবেন না এই ফরাসি তারকা, নিষিদ্ধ হয়ে যাবেন। একই অভিযোগপত্র লা লিগা কর্তৃপক্ষ ছাড়াও স্প্যানিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনে পাঠিয়েছে অ্যাটলেটিকো।

লা লিগা কর্তৃপক্ষ কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, তাঁর ওপর নির্ভর করছে গ্রিজমানের বার্সা-ভবিষ্যৎ!



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি