সোমবার,১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » বিএসএফের গুলিতে নিহত বাংলাদেশির মরদেহ দুদিন পর হস্তান্তর


বিএসএফের গুলিতে নিহত বাংলাদেশির মরদেহ দুদিন পর হস্তান্তর


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৬.০৯.২০১৯

ডেস্ক রিপোর্টঃ

বিএসএফের গুলিতে নিহত হওয়ার দুদিন পর নাজিম উদ্দিন নামে বাংলাদেশি এক যুবকের লাশ বিজিবির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা জয়নগর ও ভারতের গেদে সীমান্তের শূন্য রেখায় বিজিবির কাছে লাশটি হস্তান্তর বিএসএফ।

জীবননগর ধোপাখালী বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার রেজাউল করিম জানান, উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

ভারতের গেদে বিএসএফ ক্যাম্পের এসি স্বরূপ মহান্ত ও কৃষ্ণনগর থানা পুলিশের ইনচার্জ রাজ শেখর পাল লাশ হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন। আর বাংলাদেশের পক্ষে চুয়াডাঙ্গা জীবননগর ধোপাখালী ক্যাম্প কমান্ডার রেজাউল করিম ও জীবননগর থানার ওসি শেখ গনি মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

বিজিবি রাতেই জীবননগর থানা পুলিশকে নিহত নাজিমের লাশ বুঝিয়ে দেন। পরে জীবননগর থানার ওসি শেখ গনি মিয়া নিহতের বড় ভাই রতন মিয়ার কাছে লাশ বুঝিয়ে দেন।

রাতেই লাশ নিজ গ্রাম চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকন্দবাড়িয়া গ্রামের গাংপাড়ায় নেয়া হয়।

নিহত নাজিম উদ্দিন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আকন্দবাড়িয়া গ্রামের গাংপাড়ার তারু মিয়ার ছেলে।

উল্লেখ্য, বুধবার রাতে নাজিমসহ বেশ কয়েকজন মিলে দর্শনা নিমতলা সীমান্তের ৭৪নং মেইন পিলারের পাশ দিয়ে গরু আনতে ভারতের অভ্যন্তরে যায়। এ সময় ভারতের মাঠপাড়া বিএসএফ ক্যাম্পের টহলদলের সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এতে নাজিম গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয়। অন্যরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ফিরে আসে।

নাজিমের লাশ বিএসএফ সদস্যরা উদ্ধার করে। পরে রাতেই স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। ওই দিনই কৃষ্ণনগর হাসপাতালে তার লাশের ময়নতদন্ত সম্পন্ন হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিমতলা সীমান্তের শূন্যরেখায় উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে পতাকা বৈঠক হয়। পতাকা বৈঠকে বিজিবির কাছে বিএসএফ স্বীকার করে নাজিমকে গুলি করে হত্যা করেছে তারা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি