বুধবার,২৩শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং


মমতার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বিজেপি বিধায়ক


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৬.০৯.২০১৯

কলকাতা ডেস্কঃ

ভারতের আসাম রাজ্যে প্রকাশিত সংশোধিত জাতীয় নাগরিক তালিকার(এনআরসি) বিরুদ্ধে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন তাতে ক্ষিপ্ত ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতারা।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ভারতের উত্তর প্রদেশের বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিং দাবি করেছেন, মমতা বাংলাদেশিদের নিয়ে রাজনীতি করছেন। তিনি বলেছেন, মমতা যদি বাংলাদেশিদের সমর্থন নিয়েই রাজনীতি করতে চান তবে তার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করা উচিত।

৩১ আগস্ট (শনিবার) অনলাইন ও এনআরসি সেবাকেন্দ্রে প্রকাশিত হয় আসামের সংশোধিত নাগরিক তালিকা (এনআরসি)। এ থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের প্রায় ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ। বাদ পড়া ব্যক্তিরা ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে আপিলের সুযোগ পেলেও তাদের মধ্যে জেঁকে বসেছে বিদেশি ঘোষিত হওয়ার শঙ্কা। বিভিন্ন দলের আইনপ্রণেতারাও অভিযোগ তুলেছে বহু প্রকৃত ভারতীয় নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন।

সদ্য সমাপ্ত নাগরিক তালিকার বিরুদ্ধে শুরু থেকেই সোচ্চার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। পশ্চিমবঙ্গে আসামের মতো এনআরসি হতে দেবেন না বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন তিনি। পাল্টা বক্তব্যে পশ্চিমবঙ্গেও এনআরসি চালু করার হুমকি দেওয়া হয় বিজেপির পক্ষ থেকে। এরপর বিজেপির সরকারের সে হুমকির প্রতিবাদে রাজপথে নামেন মমতা ব্যানার্জি। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কলকাতার সিঁথি থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করেন তিনি।

এনআরসি ইস্যুতে মমতার এই পদক্ষেপকে মোটেই ভালোভাবে নেননি বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিং। তার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গে বাংলাদেশিদের স্থান করে দিতে মমতা এনআরসি’র বিরোধিতা করছেন।

গতকাল (শনিবার) বিজেপির এই নেতা এক সাংবাদিক সম্মেলনে, মমতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গেও এনআরসি প্রয়োগ করা হবে। তৃণমূল সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি বাংলাদেশিদের ধরে রাখতে চান তবে তার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করা উচিত।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি