বুধবার,২৩শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং


আবরার ফাহাদকে তিন দফায় বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করা হয়


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৯.১০.২০১৯

ডেস্ক রিপোর্টঃ

তিন দফায়, বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে। আর এই হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নিয়েছিলো ছয় ঘাতক। টানা পাঁচ ঘন্টা চলে নারকীয় তাণ্ডব।

রুম নম্বর ২০১১, শেরেবাংলা হল, বুয়েট। রাত নয়টার দিকে শুরু হয় মারপিট। নেতৃত্বে ইফতি মাহবুব সকাল। তিন দফা পেটানো হয়েছে আবরারকে। কয়েকটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, মারধর শুরু করেন বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন। পরে যোগ দেন আরও পাঁচজন। এরা হলেন- অনিক, সকাল, জিওন, মনির ও মোজাহিদুল। দ্বিতীয় দফায় মারপিট শুরু করেন অনিক, ছিলেন সবচেয়ে মারমুখী। আবরারের শরীরের উপর ভাঙেন ক্রিকেট স্ট্যাম্প।

সূত্র বলছে, তৃতীয় দফার মারপিট শুরু মুন্নার কক্ষেই। ছয় জনের পিটুনিতে এবার লুটিয়ে পড়ে আবরার। এরপর নীথর দেহটিকে টেনে হিচেড় নিচে নামানোর চেষ্টা করেন ঘাতকরা। মাঝ সিড়িতে যেতেই তারা বুঝতে পারেন আবরার মারা গেছে। সেখানেই মরদেহটি রেখে পালিয়ে যায় তারা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি