বুধবার,১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং


চাঁদে যেতে নতুন পোষাক


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৯.১০.২০১৯

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

নতুন করে স্পেসস্যুট তৈরি করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। পরবর্তী চন্দ্র অভিযানের জন্য নতুন এ পোষাকটি এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রদর্শন করা হয় ওয়াসিংটনে নাসার হেড কোয়াটারর্সে।
নতুন করে স্পেসস্যুট তৈরি করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। পরবর্তী চন্দ্র অভিযানের জন্য নতুন এ পোষাকটি এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রদর্শন করা হয় ওয়াসিংটনে নাসার হেড কোয়াটারর্সে।

গেল ১৫ই অক্টোবার নাসা প্রধান জিম ব্রিডেনস্টাইন। নারী মহাকাশচারী অ্যান ম্যাককেইন এবং মহাকাশযানের ইঞ্জিনিয়ার ক্রিস্টিন ডেভিস সাদা, লাল ও নীল রঙের স্পেসস্যুট পরে ক্যামেরার সামনে হাজির হন।

নাসাপ্রধান জানান, ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশনে যে ধরনের পোশাক পরা হয় নতুন স্যুটগুলো অনেকটা তার মতোই। তবে এটি আরও আরামদায়ক এবং চন্দ্রপৃষ্ঠে ঘোরার আরও উপযুক্ত করে তৈরি হয়েছে।

তিনি জানান, ১০০ শতাংশ অক্সিজেন থাকার পরিবেশ রয়েছে নতুন স্যুটে। ফলে সিলিন্ডারের অক্সিজেন সাশ্রয়ে পোশাকটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত আরেক নভোচারী কেট রুবিন বলেন, ‘নতুন পোশাকের একটি সুবিধা হলো শরীরের মাপ যাই হোক না কেন সেটি শরীরের মাপেই বসে যাবে। পোশাকের আছে তিনটি অংশ। এর মধ্যে মাথার অংশের জন্য হেলমেট। এরপর কোমর পর্যন্ত একটি অংশ এবং কোমর থেকে পা পর্যন্ত আরেকটি অংশ।’

রুবিন বলেন, ‘সর্বনিম্ন অংশটি তুলনামূলকভাবে হালকা, চন্দ্রপৃষ্ঠে আরামে চলাফেরার জন্য। পরা অত্যন্ত সহজ। তথাকথিত স্পেসস্যুটের মতো জটিল নয়।’

তিনি বলেন, ‘চন্দ্রপৃষ্ঠের পার্বত্য অংশে উঠে কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার থাকলে এই স্পেসস্যুটের হালকা ওজন সাহায্য করবে। এটি এমন একটি উপাদান দিয়ে তৈরি, যাতে ধুলোবালিও লাগবে না। ফলে যতদিন খুশি পরিচ্ছন্ন পোশাক পরেই থাকতে পারবেন নভোচারীরা।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি