বৃহস্পতিবার,১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং


কুমিল্লায় যেখানে শখের কবুতর বেচাকেনা হয়


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৬.১১.২০১৯


স্টাফ রিপোর্টারঃ
শুক্রবার এলেই একদল উচ্ছ্বল কিশোর প্রাণের টানে মিলিত হয়। একদল কিশোরের হাতে থাকে খাঁচাভর্তি দেশী -বিদেশী নানান প্রজাতির কবুতর। আরেকদল কিশোর আসে খালি হাতে। দু’দল কিশোরের মিলন মেলায় শখ কেনাবেচা হয়। কেউ শখের কবুতর বিক্রি করে আর কেউ শখ করে কিনেন। কুমিল্লা টমসম ব্রীজ- কোটবাড়ী সড়কের দিদার সমিতি। গত চার বছর ধরে এখানে কবুতর বেচা কেনা করে শৌখিন কিশোররা। শুক্রবার জুম্মার নামাজের পরে কেনা বেচা শুরু হয়ে পুরো বিকেল পর্যন্ত চলে।

কবুতর বাজারের আয়োজক চার কিশোর। শখের বসে তারা দিদার সমিতিতে কবুতর বেচাকেনার আয়োজন করে। চার কিশোরের মধ্য একজন জাফর ইমাম জানান, তারা তিন বন্ধু মাইনউদ্দিন, মারুফ ও মিঠু মিলে ২০১৬ সালে কবুতর হাটের আয়োজন করেন। তখন থেকে প্রতি শুক্রবার হাটে চার পাঁচজন কবুতর বিক্রি করতেন। আর এখন ২০১৯ সাল মাত্র চার বছরে শেষে প্রতি হাটবারে দুই থেকে আড়াইশ জন কবুতর বিক্রি করতে আসেন।
দিদার সমিতিতে এত প্রকার কবুতর আসে দূরদূরান্ত থেকে মানুষজন আসেন কবুতর কিনতে। শুক্রবার জুম্মার নামাজের পরে হাট জমজমাট হয়ে উঠে। প্রতি হাটবারে অর্ধ লাখ টাকার কবুতর বিক্রি হয় দিদার সমিতি এলাকার কবুতর হাটে। এখন দিদার সমিতি এলাকায় পাখি বিক্রির স্থায়ী দোকান চালু হয়েছে। দোকানগুলোতে এখন কবুতর ছাড়াও গৃহপালিত নানান প্রজাতির পাখ-পাখালী বিক্রি হয়।

কবুতর হাট থেকে একজোড়া গিরিবাজ ও তার জোড়া মিলানোর জন্য একটি সালটিন জাতের পায়রা কিনেছেন ওমর সুফিয়ান। তিনি জানান, পঞ্চম শ্রেণি পড়া অবস্থায় কবুতর পালনের শখ জাগে। এখন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। কবুতর পালনের শখ সেই সময়।
সুফিয়ান জানান, আগে কোথায় কে কবুতর বিক্রি করবে সে খবর রেখে কবুতর কিনতে যেতাম। এছাড়াও বিভিন্ন হাটে যেখানে গৃহস্থরা হাঁস মুরগী বিক্রি করতো সেখানেও কবুতর কিনতে যেতাম তবে সব সময় পছন্দের কবুতর পেতাম না। এখন দিদার সমিতির কবুতর হাটে পছন্দের সব কবুতর পাই। তাই সপ্তাহের শুক্রবারের জন্য অপেক্ষা করি। আর শুক্রবারই আমাদের শখ কেনাবেচা হয় এক আনন্দঘন পরিবেশের মধ্য দিয়ে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি