রবিবার,১৯শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং


কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক পিয়ন এখন ডাক্তার!


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৬.১১.২০১৯

সাকিব আল হেলাল:

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার লগ্নসার গ্রামের মোঃ শামছুল হক। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একজন অবসরপ্রাপ্ত পিয়ন। ২০০৮ সালে অবসরে যান। এরপর নিজ এলাকায় চন্ডিমূড়া বাজারে হক মেডিকেল নামে একটা ফার্মেসি খুলে বসেন। ফার্মেসি খুলে সেখানে তিনি নিয়মিত ডাক্তার সেজে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন আশপাশের মানুষের।

নিজেকে পল্লী চিকিৎসক দাবি করে নিয়মিত মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছেন শামছুল হক। যদিও কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি শামছুল হক। তার ফার্মেসিতে গিয়ে দেখা গেছে, যেকোনো রোগী দেখে পরীক্ষা নীরিক্ষা ছাড়াই প্রেসক্রিপশন লিখছেন এমবিবিএস ডাক্তারের মতো।

সেই প্রেসক্রিপশনে এন্টিবায়োটিকসহ এখতিয়ার বহির্ভূত ঔষধও লিখছেন শামছুল হক। এ এলাকার অধিকাংশ মানুষ নিরক্ষর হওয়ায় ব্যবসার ফন্দিটা ভালোই এঁকেছেন শামছুল হক। বিএমডিসি আইন ২০১০ অনুযায়ী এমবিবিএস পাশ ছাড়া কেউ নামের আগে ডাক্তার লিখতে না পারলেও, শামছুল হক তার পুরো ফার্মেসি জুড়ে নামের আগে ডাক্তার লিখে রঙ-বেরঙের ডিজাইন করে রেখেছেন।

শুধু তাই নয়, তার লিখিত একটি প্রেসক্রিপশন সাংবাদিকদের হাতে আসে। সেখানে তিনি নামের আগে ডাক্তার তো লিখেছেনই নামের ঠিক নিচেই লিখে দিয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। যা দেখে সাধারণ মানুষেরা বুঝতেই পারছে না তিনি ডাক্তার নাকি একজন পিয়নই ছিলেন কেবল।

একজন অবসরপ্রাপ্ত পিয়নের নামের আগে ডাক্তার এবং চিকিৎসা দেওয়ার বিধান আছে কিনা জানতে চাইলে শামছুল হক সাংবাদিকদের উপর চড়াও হয়ে বলেন, আমি আমার জায়গায় ঠিক আছি, আপনার যা পারেন করেন। এই বিষয়ে কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডাঃ মুজিবুর রহমান বলেন,অামরা তার বিষয়ে সবকিছু যাচাই করে তার বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিব”।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি