সোমবার,১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং


বকেয়া পরিশোধ করল রবি,অযৌক্তিকতার দাবিতে গ্রামীণফোন


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৫.০১.২০২০

ডেস্ক রিপোর্টঃ

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক নিশ্চিত করেন অডিটের নির্ধারিত পাওনা বাবদ মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা প্রথম কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা জমা দিয়েছে। ।

তিনি জানান, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী বকেয়া পাওনা পরিশোধ শুরু করায় রবির জন্য অনাপত্তিপত্র (এনওসি) প্রদান বন্ধের সিদ্ধান্ত শর্ত সাপেক্ষে স্থগিত করা হবে। শর্ত হচ্ছে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাদের এনওসি প্রদান অব্যাহত থাকবে। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী এর মধ্যে তৃতীয় কিস্তির টাকা দিলে কোন সমস্যা নাই, কিন্তু টাকা না দিলে আবারও এনওসি প্রদান বন্ধ করা হবে। একইভাবে গ্রামীণফোনও যদি আদালতের নির্দেশনা মেনে বকেয়া পাওনা পরিশোধ শুরু করে তাহলে তাদেরও এনওসি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত রাখা হবে। বিটিআরসি সব পদক্ষেপ নেবে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী।

গত ৫ জানুয়ারি হাইকোর্ট রবিকে বিটিআরসির অডিট নির্ধারিত মোট পাওনা ৮৬৭ কোটি টাকার মধ্যে ১৩৮ কোটি টাকা পাঁচ মাসের সমান কিস্তিতে পরিশোধের নির্দেশ দেন। আদালতের বেধে দেওয়া সময় অনুযায়ী বকেয়া পাওনা পরিশোধ শুরু করায় রবি আবারও নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ, নেটওয়াকের্র কারিগরী সক্ষমতা হালনাগাদ করা, যন্ত্রপাতি আমদানি, নতুন প্যাকেজ চালু বরতে পারবে। এতদিন এনওসি বন্ধের সিদ্ধান্তের কারণে দেশের তৃতীয় শীর্ষ মোবাইল ফেন অপারেটর রবির এসব জরুরি কাজ বন্ধ ছিল। রবির বকেয়া পাওনা পরিশোধ শুরুর মধ্য দিয়ে গত প্রায় আট মাস ধরে টেলিযোগাযোগ খাতে চলা অচলাবস্থার অবসান হতে চলেছে বলেও বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ দিকে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী মঙ্গলবার পর্যন্ত বকেয়া পাওনার কিস্তি প্রদান শুরু করেনি গ্রামীণফোন। গ্রামীণফোনের কাছে বিটিআরসির অডিট নির্ধারিত মোট পাওনার পরিমাণ ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা। এ পাওনাকে অযৌক্তিক দাবি করে গ্রামীণফোন আইনী লড়াইয়ে গেলে সর্বোচ্চ আদালত গ্রামীণফোনকে তিন মাসের মধ্যে বকেয়া পাওনার দুই হাজার কোটি টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেয়। ২৩ ফেব্রুয়ারি ৩ মাসের মেয়াদ শেষ হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি