সোমবার,১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং


স্নায়ুক্ষয়ী লড়াই শেষে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জয়


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১০.০২.২০২০

স্পোর্ট্স রিপোর্টঃ

বাংলাদেশের যুবাদের বিশ্বজয় ক্রিকেটের জন্যই দারুণ এক ঘটনা বললেন সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার অতুল ওয়াসন। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার অতুল ওয়াসন উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিশ্বজয়ে। তাঁর মতে, এই জয় ১৯৮৩ সালে ভারতের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ের মতোই নতুন দিনের সূচনাকারী এক ঘটনা।

উনিশের যুবারা বিশ্বজয় করেছে। গোটা দেশ আনন্দে উদ্বেল। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের শিরোপাজয়ে আনন্দিত ভারতের সাবেক ক্রিকেটার অতুল ওয়াসনও। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভিকে দেওয়া নিজের প্রতিক্রিয়ায় ওয়াসন বলেছেন, বাংলাদেশের এই জয় বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য দারুণ এক ঘটনা।

ফাইনালে স্নায়ুক্ষয়ী লড়াই শেষে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। যদিও টসে জিতে প্রথমে বোলিং করে ভারতকে বেশি দূর এগোতে দেননি শরিফুল ইসলাম, তানজিম হাসান সাকিব, রকিবুল হাসানরা। কিন্তু পচেফস্ট্রুমে বাংলাদেশের রানতাড়াটা মোটেও সহজ হয়নি। শুরুটা দুর্দান্ত হলেও কয়েকটি উইকেট দ্রুত পড়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশকে জয়ের বন্দরে পৌঁছতে হয়েছে মাথা ঠান্ডা রেখেই। সে কাজে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্বে দিয়েছেন পারভেজ হোসেন আর অধিনায়ক আকবর আলী। অধিনায়ক আকবর তো রীতিমতো উদাহরণই গড়েছেন দলের বিপদের মধ্যে নেতৃত্বগুণ দিয়ে।

ওয়াসনের কণ্ঠে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের জন্য প্রশংসাই ছিল, ‘এটা বাংলাদেশের ক্রিকেটের নতুন দিগন্তের সূচনা। ভারত ফাইনালে হেরেছে। কিন্তু বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জয় দারুণ একটা ব্যাপার।’

বাংলাদেশকে নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাসের ব্যাখ্যাও দিয়েছেন ভারতের হয়ে ৪ টেস্ট ও ৯ ওয়ানডে খেলা এই ক্রিকেটার, ‘আমি সব সময়ই চাই বিশ্ব ক্রিকেটে নতুন কোনো দেশ উঠে আসুক, শক্তিশালী দলগুলোর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলুক। অবশ্যই বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিশ্বকাপ জয়ের এ দিনটি বিশ্ব ক্রিকেটের জন্যই সোনালি এক দিন। বাংলাদেশের সম্ভাবনা সব সময়ই ছিল। বাংলাদেশের এই জয় অনেকটা ১৯৮৩ সালে ভারতের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ের মতোই নতুন দিনের সূচনাকারী এক ঘটনা।’

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে অনেকেই নজর কেড়েছেন। তবে ওয়াসন এখনই তাদের বড়দের ক্রিকেটে নিয়ে আসার পক্ষপাতী নন। তিনি চান বাংলাদেশের এই ক্রিকেটাররা আরও পরিণত হয়েই সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেটে পা রাখুক, ‘অনেক দেশই যুব ক্রিকেটারদের জাতীয় দলে সুযোগ দিয়েছে। কিন্তু তারা ঝরে গেছে। আমি মনে করি, প্রতিভা চিহ্নিত করা গেছে। এখন এই প্রতিভাদের ফেরত নিয়ে যেতে হবে যেখান থেকে তারা উঠে এসেছে। কঠোর পরিশ্রম করাতে হবে। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলিয়ে তৈরি অবস্থায় তাদের নিয়ে আসতে হবে সর্বোচ্চ পর্যায়ে।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি