সোমবার,২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


জুমার নামাজের প্রথম রাকাত না পেলে কী করবেন?


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২২.০৯.২০২৩

জুমার দিন খুতবার আগেই মসজিদে চলে যাওয়া উচিত। জুমার আজানের পর দুনিয়াবি কাজকর্ম করার ব্যাপারে কোরআনে নিষেধাজ্ঞা এসেছে। দ্রুত মসজিদে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আল্লাহ বলেন,

یٰۤاَیُّهَا الَّذِیۡنَ اٰمَنُوۡۤا اِذَا نُوۡدِیَ لِلصَّلٰوۃِ مِنۡ یَّوۡمِ الۡجُمُعَۃِ فَاسۡعَوۡا اِلٰی ذِکۡرِ اللّٰهِ وَ ذَرُوا الۡبَیۡعَ ذٰلِکُمۡ خَیۡرٌ لَّکُمۡ اِنۡ کُنۡتُمۡ تَعۡلَمُوۡنَ
হে মুমিনগণ, যখন জুমার দিনে সালাতের জন্য আহবান করা হয়, তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণের দিকে ধাবিত হও আর বেচা-কেনা বর্জন কর। এটাই তোমাদের জন্য সর্বোত্তম, যদি তোমরা জানতে। (সুরা জুমা: ৯)

তাই জুমার আজান হয়ে গেলে মসজিদে চলে যাওয়া, সব দুনিয়াবি কাজ বন্ধ করে দেওয়া কুরআনের সরাসরি নির্দেশে ওয়াজিব বা অবশ্য কর্তব্য।

এরপরও কোনো অসুবিধা বা জরুরি ব্যস্ততার কারণে কেউ যদি জুমার জামাতে গিয়ে প্রথম রাকাত না পান, তাহলে তিনি অন্যান্য নামাজের মতোই ইমাম সাহেব সালাম ফেরানোর পর উঠে দাঁড়িয়ে অবশিষ্ট এক রাকাত আদায় করবেন। অর্থাৎ ইমামের সালাম ফেরানোর পর আল্লাহু আকবার বলে দাঁড়াবেন, সানা পড়বেন, সুরা ফাতিহা পড়বেন, সুরা মেলাবেন, তারপর রুকু ও সেজদা করে শেষ বৈঠকের মাধ্যমে নামাজ শেষ করবেন।

ইমাম আবু হানিফার (রহ.) মতে জুমার নামাজের দ্বিতীয় রাকাতও না পেলে, শুধু শেষ বৈঠক পেলে অর্থাৎ ইমাম সালাম ফেরানোর আগে জামাতে শরিক হতে পারলেেই সেটা জুমা গণ্য হবে। ইমাম সালাম ফেরানোর পর মাসবুক হিসেবে দুই রাকাত জুমা পূর্ণ করতে হবে। মুক্তাদি তাশাহুদ পড়ার আগে যদি ইমাম সালাম ফেরান, তাহলে মুক্তাদি নিজে তাশাহুদ পূর্ণ করে বাকি নামাজের জন্য দাঁড়াবেন।

কিতাবুল আসারে উল্লিখিত রয়েছে, ইবরাহিম নাখঈ (রহ.) বলেছেন, কেউ যদি জুমার দিন মসজিদে আসার পর ইমামকে শেষ বৈঠকে পায়, তাহলে এক তাকবির বলে নামাজে অংশগ্রহণ করবে এবং আরেক তাকবির বলে বসে তাশাহুদ পড়বে। এরপর ইমাম যখন সালাম ফেরাবে তখন দাঁড়িয়ে যাবে এবং দুই রাকাত নামাজ পড়ে নেবে। (কিতাবুল আসার: ১২৮)

তবে ইমাম মালেক, শাফেঈ ও আহমদ (রহ.) বলেন, জুমার নামাজ পাওয়ার জন্য ইমামের সাথে অন্তত এক রাকাত পেতে হবে অর্থাৎ দ্বিতীয় রাকাতের রুকু শেষ হওয়ার আগেই জামাতে শরিক হতে হবে। ইমাম দ্বিতীয় রাকাতের রুকু থেকে ওঠার পর কেউ জামাতে যোগ দিলে ওই নামাজ তার জন্য জুমা নয়, বরং জোহর গণ্য হবে। তাই নামাজটিকে জুমা হিসেবে দুই রাকাত নয়, জোহর হিসেবে চার রাকাত পড়তে হবে। ইমাম সালাম ফেরানোর পর সে দাঁড়িয়ে যাবে এবং জোহরের নামাজ হিসেবে চার রাকাত পূর্ণ করবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি