মঙ্গলবার,২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


রিয়ালকে জেতালেন লুকা মদরিচ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৬.০২.২০২৪


ডেস্ক রিপোর্ট:

আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে লড়াই জমল বেশ। কিন্তু গোলের দেখা মিলছিল না কিছুতেই। বদলি নেমে ব্যবধান গড়ে দিলেন লুকা মদরিচ। ৩৮ বছর বয়সি তারকার দারুণ গোলে সেভিয়াকে হারিয়ে লিগ টেবিলে ৮ পয়েন্টে এগিয়ে গেল রিয়াল মাদ্রিদ।

সান্তিয়াগো বার্নাবাউয়ে রোববার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে কার্লো আনচেলত্তির দল। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে ৮ পয়েন্টে এগিয়ে গেছে তারা।

ম্যাচে আক্রমণে আধিপত্য ছিল রিয়ালের। ৬৪ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে গোলের জন্য স্বাগতিকরা শট নেয় ১৬টি, যার ৬টি ছিল লক্ষ্যে। সেভিয়ার ৪ শটের একটি লক্ষ্যে ছিল।

নির্ধারিত সময় শেষের ৯ মিনিট বাকি থাকতে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন মদরিচ।

এক ম্যাচ পর লিগে জয়ের স্বাদ পেল রিয়াল। গত রাউন্ডে রায়ো ভাইয়েকানোর সঙ্গে ১-১ ড্র করেছিল স্পেনের সফলতম দলটি।

২০২১ সালে রিয়াল মাদ্রিদে ১৬ বছরের অধ্যায়ের ইতি টানার পর এই ম্যাচ দিয়ে প্রথমবার বার্নাবাউয়ে খেলতে নামেন সের্হিও রামোস, সেভিয়ার জার্সিতে।

অষ্টম মিনিটে ম্যাচের প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগটি পায় সেভিয়া। ইসাক রোমেরো বাঁ দিক থেকে দারুণ পাস দেন বক্সে, ছুটে গিয়ে ছয় গজ বক্সের বাইরে পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন ইউসেফ এন-নেসিরি।

দুই মিনিট পর বাঁ দিক থেকে ভিনিসিউস জুনিয়রের পাস বক্সে দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সেভিয়ার জালে পাঠান লুকাস ভাসকেস। তবে আক্রমণের শুরুতে এন-নেসিরিকে রিয়ালের নাচো ফাউল করেছিলেন দাবি তুলে রেফারিকে ঘিরে ধরেন সেভিয়ার ফুটবলাররা।

শেষ পর্যন্ত ভিএআরের সাহায্যে মনিটরে রিপ্লে দেখে ফাউল ধরেন রেফারি। ফলে গোল পায়নি রিয়াল। তার আগে রেফারিকে কিছু একটা বলে হলুদ কার্ড দেখেন কোচ আনচেলত্তি।

মাঝে অনেকটা সময় পরিষ্কার কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি কেউ। ৩৯তম মিনিটে ব্রাহিম দিয়াসের পাস পেয়ে বক্সের ভেতর থেকে অহেলিয়া চুয়ামেনির শট সেভিয়ার একজনের গা ছুঁয়ে পাশের জালে লাগে।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ফেদে ভালভের্দে গোল পেয়েই যাচ্ছিলেন প্রায়। বক্সের বাইরে থেকে উরুগুয়ের এই মিডফিল্ডারের বুলেট গতির বাঁকানো শটে এক হাতে বল ক্রসবারের ওপর দিয়ে পাঠান সেভিয়ার গোলরক্ষক।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে দারুণ জমে ওঠে লড়াই। ৪৮তম মিনিটে ভাগ্যের ফেরে গোল পাননি ভালভের্দে। কাছ থেকে তার শট পোস্টে লাগে।

দুই মিনিট পর দারুণ সেভে জাল অক্ষত রাখেন রিয়ালের গোলরক্ষক আন্দ্রি লুনিন। কাছ থেকে রোমেরোর ভলি পা বাড়িয়ে বাইরে পাঠান তিনি।

৫৪তম মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে রদ্রিগোর শট পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। পরের মিনিটে ভিনিসিউসের বাঁ পায়ের শট দারুণভাবে ফিরিয়ে দেন সেভিয়ার গোলরক্ষক।

রেফারি ইসিদ্রো দিয়াসের পায়ে টানা লাগায় ৫৯ মিনিটের পর খেলা বন্ধ থাকে বেশ কিছুটা সময়। শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচ পরিচালনা করতে পারেননি তিনি। তার পরিবর্তে মাঠে নামেন চতুর্থ রেফারি কার্লোস ফের্নান্দেস বুয়ের্গো।

৭৫তম মিনিটে প্রথম পরিবর্তন আনেন আনচেলত্তি। নাচোর বদলি হিসেবে নামান মদ্রিচকে। ছয় মিনিট পরই দারুণ গোলে দলকে এগিয়ে নেন অভিজ্ঞ ক্রোয়াট মিডফিল্ডার।

বক্সের বাইরে আলগা বল পেয়ে একটু জায়গা বানিয়ে ডান পায়ে জোরাল শট নেন মদরিচ, বল ডান পাশের পোস্টের ভেতরের দিকে লেগে জালে জড়ায়।

বাকি সময়ে ব্যবধান ধরে রেখে তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল।

লিগ শিরোপা পুনরুদ্ধারের অভিযানে ২৬ ম্যাচে ২০ জয় ও ৫ ড্রয়ে রিয়ালের পয়েন্ট হলো ৬৫। সমান ম্যাচে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে তাদের পরে আছে বার্সেলোনা।

২৫ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে তিনে জিরোনা। ২৬ ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট নিয়ে চারে আছে আতলেতিকো মাদ্রিদ। ২৬ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৫ নম্বরে সেভিয়া।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি