রবিবার,১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


পদ্মা সেতু পর্যটন শিল্প বিকাশে বড় ভূমিকা রাখবে


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৬.১২.২০১৬

porjoton20161205201337
পূর্বাশা ডেস্ক:

নির্মাণাধীন পদ্মা সেতু শেষ হলে শিল্পায়নের সঙ্গে সঙ্গে দেশের পর্যটন শিল্প বিকাশেও বড় ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সেতুর কাজ শেষ হলে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের বিশ্বনন্দিত গন্তব্য রয়েল বেঙ্গল টাইগার সমৃদ্ধ সুন্দরবন ও সূর্যোদয়-সূর্যাস্তের অভাবনীয় সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটাকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠবে বিশাল পর্যটন শিল্প। এছাড়া পদ্মা সেতুকে ঘিরে ভবিষ্যতে পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার কথাও ভাবছে সরকার।

পদ্মা সেতু প্রকল্প এলাকার পরিবেশ সংরক্ষণের জন্য জাদুঘর ও প্রজাপতি পার্ক স্থাপন করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পর্যটক আকর্ষণের জন্য অত্যন্ত গোছানো ও দৃষ্টিনন্দন করে এ প্রাণী জাদুঘর ও পার্কটি গড়ে তোলা হচ্ছে। এটি পদ্মা সেতুরই একটি অংশ।

পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, পদ্মা সেতু দেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখবে, জিডিপি বাড়বে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হবে, গড়ে উঠবে শিল্পাঞ্চল। এর নির্মাণ শেষ হলে শুধু দেশি পর্যটকই নন, বিদেশি পর্যটকদেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করবে।

পদ্মা পাড়ের অধিবাসিরা বলছে, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নতুন করে শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে ইতোমধ্যেই দেশি-বিদেশি ব্যবসায়ীরা আকৃষ্ট হচ্ছেন। তারা ওই এলাকার আশপাশে জমিও ক্রয় করছেন শিল্প কারখানার জন্য। ফলে এদিকের জমির দামও বেড়ে গেছে কয়েকগুণ।

এছাড়া অনেক শিল্প গ্রুপ ইতোমধ্যে তাদের প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার কাজ শুরু করে দিয়েছেন বলেও জানা গেছে।

সেতু বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পে চলতি বছরের অক্টোবর পর্যন্ত মোট ১১ হাজার ৬১৬ কোটি ৭৯ লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। তিনবার সংশোধন করে বর্তমানে পদ্মা বহুমুখি সেতু নির্মাণে (দ্বিতীয় সংশোধিত) ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা। একইসঙ্গে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে সেতুর কাজ শেষ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পদ্মা সেতু প্রকল্পের অগ্রগতির মধ্যে মূল সেতু নির্মাণ ৩১ শতাংশ, নদী শাসনের কাজ ২৬, জাজিরা সংযোগ সড়ক নির্মাণ ৮২, মাওয়া সংযোগ সড়ক নির্মাণ ১০০ ও সার্ভিস এরিয়া-২ নির্মাণ ১০০ শতাংশসহ সার্বিক ভৌত অগ্রগতি হয়েছে ৩৭ শতাংশ।

সূত্রঃজাগো নিউজ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি