সোমবার,১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


কংগ্রেশনাল অ্যাওয়ার্ড পাওয়ায় ফরিদা ইয়াসমিনকে সংবর্ধনা


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৩.০৫.২০১৭

পূর্বাশা ডেস্ক:

জাতীয় প্রেসক্লাবের ৬৩ বছরের ইতিহাসে প্রথম নারী সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত ফরিদা ইয়াসমিন রচনা করেছেন এক মাইলফলক। মিডিয়া জগতে নারীর ক্ষমতায়নে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করায় সম্প্রতি তিনি অর্জন করেছেন ‘কংগ্রেশনাল বিশেষ সার্টিফিকেট’ যা ইস্যু করেন কংগ্রেসে বাংলাদেশের ককাসের চেয়ারপার্সন কংগ্রেসম্যান যোসেফ ক্রাউলি। নিউইয়র্কে আড়ম্বরপূর্ণ এক অনুষ্ঠানে ফরিদা ইয়াসমিনের হাতে এ সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়।

ফরিদা ইয়াসমিন বাংলাদেশের প্রেসক্লাব তথা বাংলাদেশের ইতিহাসের প্রথম সাংবাদিক যিনি এ সম্মাননা অর্জন করেছেন। আমেরিকা-বাংলদেশ প্রেসক্লাবের সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন মার্কিন কংগ্রেসের দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক কমিটির সদস্য ও ডেমোক্রেট পার্টির জাতীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্রেস মেং। ফরিদা ইয়াসমিন আরো একটি ‘প্রক্লেমেশন’ অর্জন করেন নিউ ইয়র্ক সিটির পাবলিক অ্যাডভোকেট’ (অ্যাটর্নি জেনারেল) লেটিসা জেমসের কাছ থেকেও।

আন্তর্জাতিকমানের এ সম্মাননায় ভূষিত হওয়ায় প্রেসক্লাবসহ বাংলাদেশের সব সাংবাদিক সংগঠনগুলো ফরিদা ইয়াসমিনকে সংবর্ধনা প্রদান করতে আজ  মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে  অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের  (বিএফইউজে) সভাপতি ওমর ফারুক। প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য জনাব আ আ ম স আরেফীন সিদ্দিকী।

রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। এরপর  জাতীয়  প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে ফরিদা ইয়াসমিনকে শুভেচ্ছা জানান। প্রধান অথিতির বক্তব্যে হাসানুল হক ইনু বলেন, “কংগ্রেশনাল অ্যাওয়ার্ড ও নিউ ইয়র্ক সিটি পাবলিক অ্যাডভোকেট সম্মাননা শুধু ফরিদা ইয়াসমিনের নয় পুরো বাংলাদেশের। শেখ হাসিনার সরকার নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্বাসী এবং নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করে যাচ্ছে। তারই পথ ধরে ফরিদা ইয়াসমিন তার অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে উপযুক্ত আসনে আসীন হয়েছেন। আমি আশা করি ফরিদা ইয়াসমিন তার দক্ষতার পরিচয় দেবেন এবং গণমাধ্যম নিয়ে কাজ করবেন।

ইউএনবির সম্পাদক মাহফুজুর রহমান বলেন, “আমাদের দেশে বর্তমানে মাত্র ছয় শতাংশ নারী সাংবাদিকতা পেশায় রয়েছেন। আমি আশা করছি ফরিদা ইয়াসমিনের হাত ধরে বাংলাদেশের নারীরা সাংবাদিকতায় সৎ সাহসিকতার পরিচয় দেবেন। ”

পিআইবির মহাপরিচালক সাবেক বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন বলেন, “বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন স্বীকৃতি কেউ দেয় না, কাজ করে স্বীকৃতি অর্জন করতে হয়। ফরিদা ইয়াসমিন তার অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে দক্ষতার সঙ্গে সাংবাদিকতা করছেন এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন সেই সুবাদে কংগ্রেশনাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। ”

ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসনিমা হোসেন বলেন, “নারীরা কাজ করতে গিয়ে তাদেরকে কত যে যন্ত্রণা পোহাতে হয়, নারী নেতৃত্ব দিতে গিয়ে কত যে বৈষম্যের স্বীকার হয়- তা আমি জানি। আমরা নারীরা কাজ করতে গিয়ে প্রায়ই লিঙ্গবৈষম্যে পড়েছিলাম। ফরিদা ইয়াসমিন আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ  সম্পাদক এমনি হয়নি। তাকে যুদ্ধ করতে হয়েছে এ পদে আসতে। করতে হয়েছিল নির্বাচন। ফরিদা ইয়াসমিন সাংবাদিকদের নিয়ে কাজ করবেন- এটাই আমরা আশা করি। ”

সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম বলেন, “নারীর ক্ষমতায়নের দৃষ্টান্ত দেখালেন ফরিদা ইয়াসমিন। আমরা জেলা প্রশাসক পুলিশ সুপারে নারীদের দেখতে পাই। প্রেসক্লাবেও নারীর অবস্থান দৃষ্টান্ত। যা দেখিয়েছেন ফরিদা ইয়াসমিন। ” প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, “ফরিদা ইয়াসমিনের কংগ্রেশনাল অ্যাওয়ার্ড ও নিউ ইয়র্ক সিটি পাবলিক অ্যাডভোকেট অর্জন পুরো বাংলাদেশের সাংবাদিকদের জন্য একটি দৃষ্টান্ত। সবার সহযোগিতায় ফরিদা ইয়াসমিনকে এগিয়ে যেতে হবে। ”

পূর্বাশানিউজ/২৩-,মে ২০১৭/রুমকী

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি