রবিবার,২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের অপেক্ষায় ১২ বছর বয়সী মা!


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৬.১০.২০১৭


পূর্বাশা ডেস্ক:
সন্তান কোলে রাজবাড়ীর পাংশায় বিচার চেয়ে দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছে ১২ বছর বয়সের এক ‘মা’। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোনো বিচার পায়নি সে। ‘অবৈধ’ ওই শিশুর পিতা হিসেবে যাকে দাবি করা হচ্ছে সে কোনো দায়িত্ব নিচ্ছেনা। প্রশাসনও সেই পিতাকে আটক করতে পারেনি।

জানা গেছে, উপজেলার পাট্টা ইউপির পুঁইজোর সিদ্দিকিয়া ফাজিল মাদরাসার নৈশ প্রহরী মালেক ভয় দেখিয়ে দিনের পর দিন ওই ‘মা শিশুকে’ ধর্ষণ করে। পরে এ কথা কাউকে জানাতে নিষেধও করে সে। নিজের ও পরিবারের সদস্যদের প্রাণ রক্ষায় ভয়ে কাউকে কিছু জানায়নি নিযার্তিত শিশুটি। পরবর্তীতে অন্তঃসত্বা হয়ে পড়লে নিযার্তিত শিশুটির মামী বাদী হয়ে গত ৮ জুন পাংশা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার ৫ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখনও আসামি মালেক পুলিশের ধরা ছোয়ার বাইরে।

নির্যাতিত শিশুর স্বজনেরা জানান, তারা খুব গরিব ও অসহায়। মানুষের বাড়িতে কাজ করে তাদের সংসার চলে। এখন জন্ম নেয়া শিশুটিকে রোজ দুধ খাওয়ানো বা লালন-পালন করার কোনো ক্ষমতা তাদের নেই। মালেকও পলাতক, পুলিশ এখনও তাকে ধরতে পারেনি।

নির্যাতিত শিশুটি বলে, ছোটবেলায় মা-বাবা মারা যাওয়ার পর মামা-মামীর সংসারে মানুষ হয়েছি। মামা খুবই গরিব দিন আনে দিন খায়। আমিই তাদের বোঝা হয়ে আছি। এখন আমার কোলে শিশুটির খাবার ও ভরন পোষণ কে দেবে ? আমি এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে পাংশা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, আসামি মালেককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ইং/ Choity.



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি