শুক্রবার,৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


৩ দিন আগে জেনেও বাল্যবিয়ে রোধে ‘ব্যর্থ’ পুলিশ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৩.০১.২০১৮

ডেস্ক রিপোর্ট:

পতেঙ্গায় বাল্যবিবাহের কবলে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী জয়া মনি (১৪)। ঘটনা সম্পর্কে পতেঙ্গা থানা পুলিশকে গত ৩ দিন আগে ও ঘটনার সময় সংবাদকর্মীরা অবহিত করলেও সঠিক সময় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয় পুলিশ।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) মাগরিবের নামাযের পর নগরীর পতেঙ্গা থানাধীন পশ্চিম মুসলিমাবাদ এলাকাস্থ আব্দুল কাদের জ্বিলানী জামে মসজিদে মৃত নবী হোসেনের বিলেত ফেরত যুবক মো. রুবেলের সাথে বাহাদুর মিয়ার নাবালক কন্যা জয়া মনি’র সাথে পুলিশের ব্যর্থতায় এ বিবাহ সম্পন্ন হয়। জয়া পতেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী। স্থানীয় যুবলীগ নেতা ইকবালের তত্ত্বাবধানে এ বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

কীভাবে আপনি একটি নাবালক কন্যার সাথে ৩০ বছর বয়সী এক যুবকের বিবাহ সম্পন্ন করলেন এমন প্রশ্নের জবাবে মসজিদের ইমাম মো. সরোয়ার কামাল জানান, আমি মেয়েকে দেখিনি তবে মেয়ের ছবি দেখে মনে হচ্ছে এ কাজটি আমার সঠিক হয়নি। আমাকে মেয়ের বাবা একটি জন্ম সনদ দিয়েছে যাতে মেয়ের বয়স ১৮ উল্লেখিত রয়েছে। আর সে তথ্যের উপর ভিত্তি করে আমি আকদ্ সম্পন্ন করেছি। আমি চাই এ বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হোক।

এ ব্যাপারে মেয়ের বাবা মো. বাহাদুর জানান, আমার মেয়েকে নিয়ে স্থানীয় কয়েকটি বখাটে ছেলে আমাকে হুমকি দিলে আমি আমার মেয়ের ভবিষ্যৎ এর কথা চিন্তা করে পরিবারের সকলের সাথে কথা বলে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিই। তবে আজ শুধু আকদ্ হয়েছে। ছেলে বিদেশ থেকে ফিরে এলে অনুষ্ঠান করে তুলে দিব।

এ বিষয়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে সংবাদকর্মী আল-আমিন সিকদার ও তার ক্যামেরাম্যানকে নাজেহাল করার চেষ্টা ও সংবাদ প্রকাশ না করার হুমকি দেয় মেয়ের পরিবার ও যুবলীগ নেতা দেবাশিষ পাল দেবুর অনুসারী স্থানীয় যুবলীগ নেতা মো. ইকবাল।

সংবাদকর্মী আল-আমিন জানান, আজ (শুক্রবার) পতেঙ্গা থানাধীন মুসলিমাবাদ এলাকায় বাল্যবিবাহ হওয়ার বিষয়টি পতেঙ্গা থানার সেকেন্ড অফিসারকে অবহিত করারর পরও তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি।

এ ব্যাপারে পতেঙ্গা থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই প্রকাশ প্রনয় দে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। পুলিশের মোবাইল টিম বিয়ে বন্ধ করেছে তিনি এমন দাবি করলেও বাস্তবে তা হয়নি।

পূর্বাশানিউজ/১৩ জানুয়ারী ২০১৮/মাহি



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি