বৃহস্পতিবার,২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » পর্যটন » বান্দরবানে রাজগুরু বৌদ্ধবিহারের ঐতিহাসিক সময় নিরুপণে প্রত্নতাত্ত্বিক দল


বান্দরবানে রাজগুরু বৌদ্ধবিহারের ঐতিহাসিক সময় নিরুপণে প্রত্নতাত্ত্বিক দল


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৭.০৮.২০২০

স্টাফ রিপোর্টার:

বান্দরবান জেলা শহরে অবস্থিত রাজগুরু বৌদ্ধবিহারে বিদ্যমান প্রধাণ বুদ্ধমূর্তিটির ঐতিহাসিক সময় নিরূপণের জন্য ৪ সদস্যের প্রত্নতাত্ত্বিক দল আজ রাজগুরু বৌদ্ধবিহার পরিদর্শন করে।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড. আতাউর রহমানের নেতৃত্বে আগত এ দলটি রাজগুরু বৌদ্ধবিহার পরিদর্শনকালে মূর্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও ডকুমেন্টেশনের কাজ করেন। পরিদর্শনকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উসেশিং এমপি, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কাইশলা মারমা , বান্দরবান জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শহীদুল ইসলাম ও বিহারের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্নতাত্ত্বিক দলের অন্য সদস্যরা হলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সোহরাব উদ্দীন, প্রভাষক শারমিন রেজোয়ানা ও প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের ফিল্ড অফিসার মো. শাহীন আলম। পরিদর্শনকালে ড. আতাউর রহমান বলেন, আমরা বুদ্ধমূর্তিটির বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ ও ডকুমেন্টেশনের কাজ করেছি। সবকিছু যাচাই বাচাই করে বুদ্ধমূর্তিটির সময়কাল সম্পর্কে আমরা একটি লিখিত প্রতিবেদন পেশ করবো।

উল্লেখ্য যে, রাজগুরু বৌদ্ধবিহার বিদ্যমান বুদ্ধমূর্তিটির ঐতিহাসিক সময় নিয়ে স্থানীয় বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মধ্যে বিতর্কের জন্ম হয়। এর প্রেক্ষিতে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর পত্র প্রেরণ করেন। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ হান্নান মিয়া বুদ্ধমূর্তিটির আপেক্ষিক সময় নিরূপণের জন্য ৪ সদস্যের প্রত্নতাত্ত্বিক দল গঠন করে বান্দরবান গমনের নির্দশনা প্রদান করেন।

উল্লেখ্য যে, মুর্তি পরিদর্শন শেষ হলে মন্ত্রী বীর বাহাদুর ও বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের অনুরোধে রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারের সম্মুখেই সীমা জাদি/বিহার পরিদর্শন করেন -যা শত বছরের পুরনো পিতলের বিশাল আকৃতির মুর্তিটি পরিদর্শন দলকে মুগ্ধ করে এবং এটি পুরাকীর্তির তালিকা ভুক্ত হওয়ার দাবি রাখে!



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি