রবিবার,১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » বাংলাদেশ » প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস পাঠিয়ে জমিসহ পাকা ঘর উপহার পেলেন কলেজ ছাত্র বাবু


প্রধানমন্ত্রীকে এসএমএস পাঠিয়ে জমিসহ পাকা ঘর উপহার পেলেন কলেজ ছাত্র বাবু


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৪.০৯.২০২১

ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিজের দুর অবস্থার কথা জানিয়ে মোবাইল ফোনে এসএমএস পাঠিয়েছিলেন মাগুরার প্রতিবন্ধী কলেজ ছাত্র বাবু মিয়া (২২)। সেই বার্তা পাঠানোর প্রতিদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। জমিসহ পাকা ঘর উপহার পেয়েছেন তিনি।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মাগুরা জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম বাবু মিয়ার কাছে বাড়ি ও জমির দলিল বুঝে দেন।

মাগুরা সদরের হাজরাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে দুইশতক সরকারি খাস জমিতে সেমি পাকা দুই কক্ষের টিন সেডের এই ঘরটি নির্মিত হয়েছে। বাবু মিয়া মাগুরা আদর্শ ডিগ্রী কলেজের স্নাতক শ্রেণীর ২য় বর্ষের ছাত্র।

প্রতিবন্ধী এই কলেজ ছাত্র বলেন, ‘ছোট বেলায় বাবা মারা যাওয়ার পর মাকে নিয়ে নানা বাড়িতে থেকেছি। আমার কোন জায়গা জমি ছিল না। মাকে নিয়ে কোথায় যাব কোথায় থাকবো। এই চিন্তা থেকেই অনেক কষ্ট করে প্রধানমন্ত্রীর মোবাইল ফোন নম্বর সংগ্রহ করি। পরে গত এপ্রিল মাসে আমার দুরাবস্থা জানিয়ে একটি ঘর চেয়ে এসএসএস পাঠাই। আমার এসএসএসটি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে। প্রধানমন্ত্রী মাগুরা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে এই ঘর করে দেওয়ার ব্যবস্থা নেন। যেটি আজ হস্তান্তরিত হলো।’

বাবু মিয়া ঘর পেয়ে আনন্দ প্রকাশ করতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

মা হাসনাহেনা বেগম বলেন, ‘চার সন্তানের মধ্যে বাবু সবার ছোট। ছোটবেলা থেকে বাবু প্রতিবন্ধী। ঠিক মত কথা বলতে পারে না। আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে চার সন্তান নিয়ে আমি অনেক কষ্ট করেছি। আমার বাবার বাড়িতে ছোট একটি ঘরে সেখানে সবাইকে নিয়ে বাস করা যায় না। অনেক কষ্ট করে খেয়ে না খেয়ে আমি সন্তানদের বড় করেছি। কিন্তু তাদের কোন থাকার জায়াগা দিতে পারিনি। শত ব্যস্ততার মাঝেও প্রধানমন্ত্রী আমার বাবুর পাঠানো এসএমএসটি পড়ে ঘর তৈরি করে দিয়েছেন। এর জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। আল্লাহ যেন তাকে দীর্ঘজীবী করে। তিনি আজীবন যেন আমাদের মতো অসহায় মানুষের পাশে থাকতে পারেন’।

জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম বলেন, ”প্রতিবন্ধী বাবু মিয়া তার নিজের অসহায়ত্বের কথা প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএমএস করেন। বাবু তার এসএমএসে লিখেছিলেন,’আমি প্রতিবন্ধী বাবু মিয়া, আমি মাকে নিয়ে ছোট বেলা থেকে নানা বাড়িতে জীবনযাপন করছি। আমাদের কোন জমিজায়গা নেই। মাসহ আমাদের পাঁচ সদ্যসের সংসার। একটি মাত্র ঘর। আমার একটি ঘর অতি দরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার একটি ঘর করে দিলে চির কৃতজ্ঞ হবো।”

জেলা প্রশাসক আরো জানান, এসএমএসটি পড়ে প্রধানমন্ত্রী আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা বাবু মিয়ার খোঁজ খবর নিলে অসহায়ত্বের সত্যতা মেলে। পরে হাজরাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় হাজরাপুর পুরাতন বাজার মাগুরা-ঝিনাইদহ সড়কের পাশে দুইশতক জমিতে পাকা ঘর করে নির্মাণ করা হয়। শনিবার জেলা প্রাশাসনের পক্ষ থেকে যা বাবু মিয়াকে বুঝে দেওয়া হলো।

এদিকে ঘর প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসিন কবির, হাজরাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কবির হোসেনসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি