রবিবার,২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


আজ বাঙালির শোকের দিন


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৫.০৮.২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট:

১৫ আগস্ট আজ। বাঙালির শোকের দিন। জাতীয় শোকদিবস। বাঙালির ইতিহাসের মহানায়ক, এ উপমহাদেশের নন্দিত নায়ক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী আজ।

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালির অভিধায় অভিষিক্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ১৯৭৫ সালের এ দিনে হারিয়েছে বাঙালি। জাতি হারিয়েছে স্বাধীনতার মহানয়ক, বাংলা ও বাঙালির আরাধ্য পুরুষ, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। এ দিনে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার-পরিজনকে একদল ঘাতকের পৈশাচিকতার কাছে জীবন দিতে হয়েছে।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে নৃশংসভাবে নিহত হন। ধানমন্ডির ঐতিহাসিক ৩২ নম্বর সড়কের নিজ বাসভবনে হত্যাকান্ডের শিকার হন ইতিহাসের মহানায়ক। কিছু বিশ্বাসঘাতক রাজনীতিকের চক্রান্ত এবং সেনাবাহিনীর একদল উচ্ছৃঙ্খল উচ্চাভিলাষী সদস্যের নির্মম বুলেটের আঘাতে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে প্রাণ হারান তাঁর সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, তিন ছেলে মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামাল, সেনাকর্মকর্তা শেখ জামাল ও দশ বছরের শিশুপুত্র শেখ রাসেল। প্রাণ হারান নবপরিণীতা দুই পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল।

প্রবাসে থাকায় সেদিন বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই মেয়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা এবং শেখ রেহানা। আগস্টের এদিনে প্রাণ হারান বঙ্গবন্ধুর অন্য আত্মীয়-স্বজনরাও। বঙ্গবন্ধুর জীবন বাঁচাতে ছুটে আসা রাষ্ট্রপতির ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মকর্তা কর্নেল জামিল উদ্দিন আহমেদসহ কয়েকজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও কর্মচারীও প্রাণ হারান।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জাতি আজ গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করবে এ শহীদদের। দিনটি সরকারি ছুটির দিন হিসেবে পালিত হয়।

আজকের দিনটি বাঙালি জাতির ইতিহাসের সবচেয়ে কলঙ্কিত ও অভিশপ্ত দিন। এ দিনে বাঙালি জাতির ললাটে যে কলঙ্কতিলক পরিয়ে দেওয়া হয়েছিল, দীর্ঘ ৩৪ বছরেরও বেশি সময় পর সে কলঙ্ক থেকে জাতির মুক্তি মিলেছে। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর করা হয়। এর মধ্য দিয়ে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে বাঙালির বিজয়ের যাত্রা আরেক ধাপ এগিয়েছে।

এ পরিপ্রেক্ষিতে আজকের দিনটি বাঙালির জীবনে যেমন শোকের, তেমনি গৌরব ও আনন্দেরও। দিনটি উপলক্ষে পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ সরকারি ছুটি। আজ জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। সরকারি ও বেসরকারি ভবনে উড়বে কালো পতাকা।

দিবসটি উপলক্ষে আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনসহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক সংগঠন, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় পৃথক পৃথক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ ছাড়া সারা দেশে দলটির নেতাকর্মীদের উদ্যোগে অসচ্ছল, এতিম ও দুস্থ মানুষদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ ও গণভোজের আয়োজন করা হয়েছে।

শোক দিবস উপলক্ষে দেশের সব মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে সকাল সাড়ে ৬টায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কের বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে শ্রদ্ধা জানানো হবে। রাষ্ট্রীয় কর্মসূচির সঙ্গে সমন্বয় করে তা জানানো হবে। সকাল ৮টায় বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে। দুপুর ১২টায় টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার ভোরে ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাবেন। শ্রদ্ধা জানানো শেষে প্রধানমন্ত্রী গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যাবেন। সকাল ১০টায় প্রথমে তিনি সরকারের পক্ষে শ্রদ্ধা জানাবেন। পরে দলীয় নেতাদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন।

১৬ আগস্ট বিকেল ৪টায় আওয়ামী লীগের আয়োজনে শোক দিবসের স্মরণসভা হবে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ সভায় সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি