শনিবার,২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


শ্রেণিকক্ষ যুবলীগ নেতার দখলে, মাঠে চলছে পাঠদান


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৪.০৯.২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট:

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দক্ষিণ সিন্দুর্ণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরোনো ভবনে মোট তিনটি শ্রেণিকক্ষ রয়েছে। এর একটিতে শিক্ষকরা বসেন। একটি দখল করে নির্মাণসামগ্রী রেখেছেন হাতিবান্ধা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও বিদ্যালয়টিতে নতুন ভবন নির্মাণের ঠিকাদার আব্দুল হামিদ সরকার হামিদুল। বাকি একটি শ্রেণিকক্ষে পাঠদান।

বিদ্যালয়ের ওই একটি কক্ষে সকালে শুরু হয় প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পাঠদান। এরপর একই কক্ষে একসঙ্গে হয় তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঠদান। শিশু শ্রেণির ক্লাস হচ্ছে কখনো বারান্দায়, কখনো বিদ্যালয়ের মাঠে অর্থাৎ খোলা আকাশের নিচে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, বিদ্যালয়ের পুরোনো ভবনের একটি কক্ষে তারা বসেন। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৬৯ লাখ টাকা ব্যয়ে নতুন ভবন নির্মাণকাজ শুরু হয়। দীর্ঘ ৪ বছরে নিমার্ণকাজ শেষ না করে উল্টো পুরোনো ভবনের একটি শ্রেণিকক্ষ দখল করে নির্মাণসামগ্রী রেখেছেন ঠিকাদার আব্দুল হামিদ সরকার হামিদুল। ফলে এক শ্রেণিকক্ষে একসঙ্গে চলছে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঠদান।

এদিকে, খোঁজ নিয়ে জানা যায়- হামিদুল বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজ শেষ না করলেও অধিকাংশ টাকাই উত্তোলন করেছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম মোল্লা বলেন, বিষয়টি একাধিকবার স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর (এলজিইডি) ও প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগকে জানানো হলেও কোনো সুফল আসেনি।

এ বিষয়ে জানতে যুবলীগ নেতা ও ঠিকাদার আব্দুল হামিদ সরকার হামিদুলের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হয়। প্রথমে রিসিভ করার পর সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে কলটি তিনি কেটে দেন। এরপর বারবার কল করা হলেও তিনি আর রিসিভ করেননি।

হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মিঠুন বর্মণ বলেন, ‘শ্রেণিকক্ষে ঠিকাদার মালামাল রেখেছেন, তা আমি জানি না। আমি দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

হাতীবান্ধা উপজেলা প্রকৌশলী নজির হোসেন বলেন, ‘ঠিকাদারকে অনেক চাপ দেওয়া হচ্ছে তারপরও তিনি কাজ শেষ করছে না। দ্রুত সময়ের মধ্যে নতুন ভবন খুলে দেওয়া হবে।’

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজির হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি দুঃখজনক। খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি