শুক্রবার,৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


কুমিল্লায় পাবেল হত্যামামলার প্রধান আসামিসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৪.১২.২০২২

ইসতিয়াক আহমেদ:

কুমিল্লার পাবেল হত্যামামলার প্রধান আসামিসহ ৪জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
রবিবার (৪ই ডিসেম্বর) দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান।

চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের যৌথ অভিযানে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা এবং ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে আসামিদের গ্রেফতার করে এবং হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন ফেনী থানার গজারিয়া কান্দি এলাকার ফারুক আহাম্মদের ছেলে আবু হুরাইয়া অনিক, উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুলাসার এলাকার আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে সালমান হোসেন, একই এলাকার রবিউল হক ওরফে জানু মিয়ার ছেলে নাঈমুল হক রাকিব এবং উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের ধোপাখিল এলাকার শামসুল হকের ছেলে নাজিমুল হক জয়।

পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বলেন আসামি রাকিবের সাথে পাবেল ১ মাস আগে কলেজে তর্কবিতর্ক হয়েছিলো, তারপর থেকে রাকিব তার বন্ধুদের নিয়ে পাবেলকে মারধর করার পরিকল্পনা শুরু করে। ঘটনার দিন পাবেল যখন তার নানার বাড়ি চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আলকরা ইউনিয়ন ধোপাখিল গ্রামে আসে। এই কথা শুনে রাকিব তার বন্ধুদের জানায় এবং পাবেলকে মারধর করার পরিকল্পনা করে। পরে সন্ধ্যায় যখন পাবেল তার বন্ধুদের সাথে ব্যাডমিন্টন খেলার সময় রাকিব তার সহযোগীদের নিয়ে খেলার মাঠে এসে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাত করে। পাবেলের বন্ধুরা পাবেলকে বাচাতে আসলে রাকিববাহিনী তাদেরকেও ছুরিকাঘাত করে।

উল্লখ্য গত বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ব্যাটমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে আলকরা ইউনিয়নের ধোপাখিলা গ্রামের ভূঁইয়া বাড়ী সংলগ্ন ব্যাটমিন্টন মাঠে কিশোর গ্যাংয়ের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে কমপক্ষে পাঁচজন গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক পাভেলকে মৃত ঘোষনা করেন। পরে পাবেলের মা লিপি ইসলাম চৌদ্দগ্রাম থানায় এজাহারনামীয় ৯ জন এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা রুজু করেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি