সোমবার,৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


কুমিল্লা বুড়িচংয়ে চোর অপবাদ দেওয়ায় সহকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৭.০১.২০২৩

ডেস্ক রিপোর্ট:

কুমিল্লা বুড়িচংয়ে চোর সন্দেহ করায় রুমমেটকে হত্যার পর বস্তাবন্দি করে ডোবায় ফেলে দেয়া হয় লাশ। উপজেলার দুর্গাপুর নোয়াপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। মনজুরুল ইসলাম (২৬) রংপুর বদরগঞ্জ উপজেলার সন্তোষপুর গ্রামের বাসিন্দা।

মনজুরুল দুর্গাপুর নোয়াপাড়া এলাকার আক্তার হোসেনের গরুর খামারে কাজ করতেন। এ ঘটনায় নাহিদ হোসেনকে (১৯) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নাহিদের বাড়ি রংপুর তারাগঞ্জ থানার উজিয়াল ডাক্তারপাড়া এলাকায়।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত মনজুরুলের ছোট ভাই মোস্তাকিন মিয়া মঙ্গলবার বুড়িচং থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কামরান হোসেন।

পুলিশ কর্মকর্তা কামরান হোসেন জানান, ১৬ জানুয়ারি বিকেলে মোস্তাকিন মিয়া তার বড় ভাইকে পাওয়া যাচ্ছে না মর্মে বুড়িচং থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে। প্রযুক্তির সহায়তায় সন্দেহভাজন নাহিদ নামে একজনকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। নাহিদ স্বীকারোক্তি দেয় সে মনজুরুলকে হত্যা করেছে। নাহিদের তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ ডোবা থেকে মনজুরুলের মরদেহ উদ্ধার করে।

মনজুরুল নোয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা আক্তার হোসেনের গরু খামারের কর্মচারী ছিলেন। এছাড়াও সময় পেলে তিনি অন্যের বাড়িতে দৈনিক মজুরিতে কৃষি কাজ করতেন। নাহিদও ওই খামারের কর্মচারী।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, মনজুরুল ও নাহিদ খামারের শ্রমিক। এক রুমে থাকতেন। গত ১৩ জানুয়ারি রাতে মনজুরুলের পকেটে থাকা ১৪০০ টাকা হারিয়ে যায়। মনজুরুলের দাবি, এ টাকা চুরি করেছে নাহিদ। বিষয়টি নিয়ে দুজনের মধ্য বাকবিতণ্ডা হয়। এদিকে চুরির অপবাদ দেওয়ায় রাত সাড়ে ১১ টায় নাহিদ ঘুমন্ত অবস্থায় মনজুরুলকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ খামারের পাশের গোবরের ডোবায় ফেলে দেয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি