রবিবার,২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে স্ত্রীকে হত্যা করলো স্বামী


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১২.০৫.২০২৩

ডেস্ক রিপোর্টঃ

স্বামীর দেওয়া আগুনে ঝলসে যাওয়া নিলুফা ইয়াসমিন হ্যাপি (২৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে চিকিৎসাধীন মারা যান তিনি।

পারিবারিক কলহের জেরে গত সোমবার দুপুরে ঈশ্বরদী উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া গরুর হাটে স্ত্রীর শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন লাগিয়ে শরীর ঝলসে দেয় পাষণ্ড স্বামী মো. রনি (৩০)।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, তিন বছর আগে ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে হ্যাপির সঙ্গে ঈশ্বরদী উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের আওতাপাড়া গ্রামের রমজান আলীর ছেলে মো. রনির বিয়ে হয়। বিয়ের পর হ্যাপি জানতে পারে রনির স্ত্রী ও সন্তান আছে। বিয়ের পর নিজের বাড়িতে দ্বিতীয় স্ত্রী হ্যাপিকে না তুলে তাকে নিয়ে রনি পাকশীর রূপপুরে ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। তবে হ্যাপি ভাড়া বাড়ি ছেড়ে রনির নিজ বাড়িতে বসবাস করতে চাইলে তাদের মধ্যে প্রায়ই কলহ সৃষ্টি হতো।

ঘটনার দিন দুপুর ১টার দিকে স্বামীর বাড়িতে বসবাসের জন্য হ্যাপি স্বামী রনির অনুমতি ছাড়াই আওতাপাড়া গেলে উভয়ের মধ্যে চরম বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় রনি হ্যাপিকে বেধড়ক মারপিট করে তাকে টেনেহিঁচড়ে বাজারের মধ্যে একটি চায়ের দোকানে নিয়ে আসে। একপর্যায়ে রনি উত্তেজিত হয়ে স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে মারার জন্য বন্ধু পলাশকে পেট্রল কিনে আনতে বলে।

রনির কথামতো পলাশ পাশের একটি দোকান থেকে পেট্রল এনে রনিকে দিলে সে উত্তেজিত হয়ে হ্যাপির শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয়।

এ সময় হ্যাপির চিৎকারে স্থানীয়রা হ্যাপির শরীরে আগুন নেভান। হ্যাপির শরীরে আগুন দিতে গিয়ে রনিরও দুই হাত আগুনে ঝলসে যায়। পরে স্থানীয়রা হ্যাপিকে উদ্ধার করে সিএনজিযোগে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়ে দেন। হ্যাপির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে পাবনা সদর হাসপাতালে ও পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। হাসপাতালে শুক্রবার সকালে হ্যাপির মৃত্যু হয়।

ঈশ্বরদী থানার ওসি অরবিন্দ সরকার জানান, ঘটনার দিন খবর পেয়ে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রনিকে গ্রেফতার করে। আগুন জ্বালানোর সময় রনিও কিঞ্চিৎ পুড়ে আহত হওয়ায় তাকেও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি