বৃহস্পতিবার,২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


নোয়াখালীতে মাদক কারবারে বাধা দেওয়ায় দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৯.০৫.২০২৩

ডেস্ক রিপোর্ট:

নোয়াখালী সদর উপজেলায় বাবা-ছেলের মাদক কারবারে বাধা দেওয়ায় দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে।

রোববার (২৮ মে) রাতে অশ্বদিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব নুরপুর গ্রামে বদর শাহ মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পোলট্রি ব্যবসায়ী আবদুল সাহেদ (২৯) ও তার ছোট ভাই আবদুল শামীমকে (২১) মারাত্মক জখম অবস্থায় উদ্ধার করে ২৫০ শয্যার নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, পূর্ব নুরপুর বদর শাহ মসজিদ সংলগ্ন বাড়ির মনির হোসেন টিপু (৫২) ও তার ছেলে মেহেরাফ হোসেন ইমন (২২) এলাকায় নানা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত। তাদের সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মাদক সেবন ও কারবারের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। কেউ প্রতিবাদ করলেই কিশোর গ্যাং দিয়ে তাকে নাজেহাল, আক্রমণ ও হয়রানি করা হয়।

জানা গেছে, রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাবা-ছেলের মাদক কারবারের প্রতিবাদ করায় অভিযুক্তরা স্থানীয় ডাক্তারহাট বাজারের পোল্ট্রি ব্যবসায়ী আবদুল সাহেদ ও তার ভাই আবদুল শামীমকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেন। পরে এ ঘটনায় আহত আবদুল সাহেদ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত বাবা-ছেলেকে এলাকায় পাওয়া যায়নি। তাদের ব্যবহৃত মোবাইলফোনে কল দিয়ে বন্ধ পাওয়া যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নাসির উদ্দিন টিটু হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত মেহেরাফ হোসেন ইমনের বিরুদ্ধে এলাকায় অনিয়মের অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। এসব বিষয়ে আগেও তাকে অনেকবার সতর্ক করা হয়। আহতরা সাধারণ ব্যবসায়ী। এ ঘটনার বিচার হওয়া উচিত।

অশ্বদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন বাবলু বলেন, বাবা-ছেলে কর্তৃক দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম করার বিষয়টি শুনেছি। অভিযুক্তরা বেপরোয়া তাই থানায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।

সুধারাম মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান পাঠান বলেন, খবর পেয়ে একজন উপ-পরিদর্শকের (এসআই) নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে। আসামিরা গা-ঢাকা দেওয়ায় পাওয়া যায়নি। অভিযোগ অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি