বৃহস্পতিবার,২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


১৪ দিনের ব্যবধানে বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশির মৃত্যু


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৮.০৯.২০২৩

ডেস্ক রিপোর্ট:

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বিএসএফের গুলিতে রবিউল হক (৪০) নামে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর রাতে চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের বেনীপুর সীমান্তে মিজানুর রহমান (৫০) নামে এক বাংলাদেশি গরুর রাখালকে গুলি করে হত্যা করে ভারতীয় বিএসএফ। ১৪ দিনের ব্যবধানে চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে দুইজন বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করল ভারতীয় বিএসএফ।

বুধবার রাতে বিএসএফের গুলিতে মৃত রবিউল হক দামুড়হুদা কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের পীরপুরকুল্লাহ গ্রামের মৃত রহমতুল্লাহের ছেলে।

কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুল করিম জানান, গরুর রাখাল রবিউল হক বুধবার রাতে ঠাকুরপুর সীমান্তের ৯২নং মেইন পিলারের কাছে যায়। এ সময় ভারতীয় বিএসএফ তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। বৃহস্পতিবার সকালে রবিউল হকের মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ভীমপুর থানা পুলিশ।

বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে মরদেহ বাংলাদেশে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান।

দামুড়হুদা সীমান্তের বিজিবি মুন্সিপুর কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিএসএফ রবিউলকে গুলি করে হত্যা করে। এ বিষয়ে পতাকা বৈঠকের জন্য ভারতীয় বিএসএফের কাছে সকালে পত্র পাঠানো হয়।

তিনি আরও জানান, পত্র পেয়ে বিএসএফ বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ২০ মিনিটের সময় ঠাকুরপুর সীমান্তে ৯১ মেইন পিলারের সন্নিকটে বিজিবি-বিএসএফ এক পতাকা বৈঠকে মিলিত হয়। পতাকা বৈঠকে বিএসএফ রবিউলকে গুলি করার কথা শিকার করে জানায়, তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কৃষ্ণনগর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষ হলে তার লাশ ফেরত দেওয়া হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি