বুধবার,২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে শিশু ফাতেমাকে হত্যা, দুই ভাই আটক


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৩.১০.২০২৩

ডেস্ক রিপোর্ট:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে ফাতেমা নামের এক শিশুকে হত্যা করেন তারই দুই ভাই। সোমবার রাতে উপজেলার চান্দল বিল থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে হত্যার শিকার শিশুর চাচাতো ভাই আলাউদ্দিন ও ফুফাতো ভাই লাজিমকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

পুলিশ আরও জানায়, ফাতেমাকে তুলে নিয়ে চান্দল বিলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন দুই ভাই। পরে বিলের কচুরিপানার নিচে মরদেহ লুকিয়ে রাখা হয়। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, উপজেলার দরিয়াদৌলত ইউনিয়নের শুঁটকিকান্দি গ্রামের বাসেদ মিয়ার মেয়ে ফাতেমা শুঁটকিকান্দি কিন্ডারগার্ডেনের নার্সারি বিভাগের শিক্ষার্থী। সে গত শনিবার সন্ধ্যায় চাচার বাড়িতে যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে সোমবার সকালে বাঞ্ছারামপুর মডেল থানায় নিহতের বাবা বাসেদ মিয়া জিডি করেন। এরপর ‘কবিরাজ বাবা’ নামের একটি ইমো নম্বর থেকে ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে একটি খুদেবার্তা পাঠানো হয় হত্যার শিকার শিশুর মা রুবি আক্তারের মোবাইল ফোনে। এই বার্তার সূত্র ধরে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় আলাউদ্দিনকে আটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেন।

পুলিশ আরও জানায়, ফাতেমাকে তুলে নিয়ে চান্দল বিলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন দুই ভাই। পরে বিলের কচুরিপানার নিচে মরদেহ লুকিয়ে রাখেন।

হত্যার শিকার শিশুর মা রুমি আক্তার বলেন, আমার আদরের মেয়ের তো কোনো অপরাধ ছিল না। হেরার (তাদের) যদি টাকা লাগতো আমার কাছে চাইতো আমি দিতাম। আমার মেয়েকে মারল কেরে (কেন)? আমি সব খুনির ফাঁসি চাই। আমি কি নিয়া বাঁচমু এখন?

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি জানতে পেরেছি হত্যার শিকার শিশুর মা রুমি আক্তারের কাছে চার লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়েছিল। এর সূত্র ধর দুজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যার শিকার শিশুর মা বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেছেন। সবই উদঘাটন করব।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি