মঙ্গলবার,২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » আগামী মার্চ থেকেই বাজার ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী


আগামী মার্চ থেকেই বাজার ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৪.০২.২০২৪


ডেস্ক রিপোর্ট:

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেছেন, আমরা একযোগে বাজার ব্যবস্থাপনা ঢেলে সাজাতে চাচ্ছি। আগামী ১ মার্চ থেকে এ পরিবর্তন দেখবে দেশ। ভোক্তা থেকে উৎপাদক পর্যায়ে সর্বাত্মক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পলিসি বা ভোক্তা অধিদপ্তর দিয়ে কোনো হ্যারাজমেন্ট (হয়রানি) নয় বরং সাপ্লাই (সরবরাহ) যথেষ্ট রাখা হবে। পাশাপাশি চালের বস্তায় উৎপাদন বছর, তারিখ, উৎপাদন মূল্য, পাইকারি মূল্য ও খুচরা মূল্য লেখা লেবেল থাকবে।

বুধবার মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) আয়োজিত ত্রৈমাসিক মধ্যাহ্নভোজ সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

এমসিসিআই সভাপতি কামরান তানভিরুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (করপোরেট ফিন্যান্স) উজমা চৌধুরী, মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, এমসিসিআইএ’র সাবেক সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবিরসহ দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী ও ব্যবসায়ীরা নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, কৃষি, খাদ্য ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মিলিত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এ পদক্ষেপের মাধ্যমে বাজার ব্যবস্থাপনা ঢেলে সাজাতে চাচ্ছি। ভোক্তা থেকে উৎপাদক পর্যায়ে কারসাজি ঠেকানো যাবে। আগামী মাস থেকেই চালের বস্তায় লেবেল থাকবে। সেখানে লেখা থাকবে ধানের উৎপাদনের বছর ও তারিখ, উৎপাদন মূল্য, পাইকারি মূল্য, খুচরা মূল্য। এখানে দাম বাড়িয়ে লেখার কোনো সুযোগ থাকবে না। কারসাজি করা যাবে না।

১ মার্চ থেকে বাজার ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আসবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, একটা পণ্যের দাম কারওয়ান বাজারে ১০০ টাকা হয়ে গেলে, মোহাম্মদপুর বাজারেও ৮০ টাকার জিনিস ১০০ টাকা হয়ে যায়। অথচ দাম কমলে নানা অজুহাতে সেটা কমাতে সময়ক্ষেপণ করা হয়ে থাকে। আগামী এক তারিখ থেকে বাজারের পণ্যের দাম লেখা থাকবে ওয়েবভিত্তিক। এখানে কোন বাজারে কী দাম সেটা উল্লেখ থাকবে। কম-বেশি করে নেওয়ার সুযোগ থাকবে না।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বিশ্বের প্রতিটি মুসলিম দেশে রমজানে পণ্যের দাম কমাতে মালিকরা নমনীয় আচরণ করেন। মক্কা-মদিনায় বড় বড় খেজুর মালিকরা খেজুর নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন। আপনারও এবারের রমজানে অন্তত নমনীয় হবেন দয়া করে। আপনারা ঢাকা শহরে, গাজীপুর বা আপনাদের কারখানা সংলগ্ন এলাকায় সূলভমূল্যে নিত্যপণ্য সরবরাহ করুন। এতে বাজার পরিস্থিতি অনেকটা ভালো থাকবে।

আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, আসন্ন রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ, পণ্য সরবরাহ, বাজার মনিটরিংসহ নানামুখী পদক্ষেপ থাকবে। এসব পদক্ষেপের ফলে রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে থাকবে। রমজান উপলক্ষে সরকার টিসিবির মাধ্যমে এক কোটি প্রান্তিক পরিবারকে চাল, ডাল, তেল, খেজুরসহ পাঁচ ধরনের পণ্য সরবরাহ করবে। এ কারণে হয়তো সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসবে। আপনারাও (ব্যবসায়ী) রমজানে নমনীয় আচরণ করবেন দয়া করে। নিরবচ্ছিন্ন পণ্য সরবরাহ করা গেলে কেউ মজুতদারি করে দাম বাড়াতে পারবে না। পণ্যের দামও যৌক্তিক পর্যায়ে থাকবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি