রবিবার,১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ


কুমিল্লার নিহত মুনিয়া নবম শ্রেণিতে অধ্যয়নকালেই পালিয়ে বিয়ে করেন


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০১.০৫.২০২১

ডেস্ক রিপোর্টঃ

মোসারাত জাহান মুনিয়া, কুমিল্লা নগরীর মনোহরপুর এলাকার উজির দীঘির দক্ষিণপাড়ের বাসিন্দা। বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভিনের সাথে তার দু’বছরের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি গুলশানের বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে মুনিয়ার রহস্যজনক মৃত্যু হয়।

এর আগে নবম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় নগরীর শুভপুর এলাকার নিলয় নামের এক ছেলের সাথে মুনিয়ার বিয়ে হয়। তিন মাস পর ওই বিয়ে বিচ্ছেদে পরিণত হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ২০১৪ সালে মুনিয়া নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় কুমিল্লা শহরের ৬নং ওয়ার্ডের শুভপুর এলাকার নিলয় নামে এক যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যায়। নিলয় বিবাহিত, দুই সন্তানের জনক। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি থানায় নিলয়কে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। ওই সময় মুনিয়ার মা-বাবা জীবিত ছিলেন।

ওই মামলায় বলা হয়, ‘আমার অপ্রাপ্ত বয়স্ক বোনকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে তার সম্ভ্রম লুটসহ জানমালের ভয়াবহ ক্ষতির শঙ্কা করছি। অবিলম্বে নিলয়কে গ্রেপ্তারপূর্বক মুনিয়াকে উদ্ধারকল্পে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানাচ্ছি।

ওই মামলার সাড়ে তিন মাস পরে কুমিল্লার কোতোয়ালি থানা পুলিশ ফেনীতে নিলয়ের এক আত্মীয়ের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করে মুনিয়াকে। পরে স্থানীয়দের মধ্যস্থতায় গ্রাম্য বৈঠকে মোটা অঙ্কের জরিমানা আদায়ের মাধ্যমে নিলয়-মুনিয়ার বিয়ে বিচ্ছেদ ঘটানো হয় এবং যে যার পরিবারে ফিরে যায়। এরপর নুসরাত ঢাকায় পাঠিয়ে দেন মুনিয়াকে।

মুনিয়ার নিলয়ের সঙ্গে পালানোর বিষয়ে জানতে চাইলে বড় ভাই সবুজ বলেন, ‘তখন মুনিয়ার বয়স ছিল কম। সে আবেগে পড়ে ভুল করেছে। আমরা পরে সামাজিকভাবে সেটার সমাধান করেছি।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি