বুধবার,১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » কুমিল্লা নিউজ » ত্রুটিযুক্ত ভোটার তালিকায় বুডিচংয়ের এক স্কুলের পরিচালনা পর্ষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি


ত্রুটিযুক্ত ভোটার তালিকায় বুডিচংয়ের এক স্কুলের পরিচালনা পর্ষদ নির্বাচনের প্রস্তুতি


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১১.০১.২০২২

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লার এক স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচনে একজন মুসলমান ভোটারকে হিন্দু বানিয়ে ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকায় ভোট গ্রহণের অপচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

কুমিল্লার বুডিচংয়ের ভরাসার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচন ঘিরে এ অভিযোগ করেন একজন অভিভাবক আবদুল জলিল।

তিনি গত ৯ জানুয়ারি বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোহাম্মদ ফারুক আহাম্মদের বরাবরে এ অভিযোগ করে বলেন, তার নাম আবদুল জলিল। আর ভোটার তালিকায় নাম উঠেছে আবদুল অনিল। তিনি অবিলম্বে ভোটার তালিকা সংশোধন করে তার সঠিক নাম যুক্ত করে নতুন ভোটার তালিকায় আবারও ভোটের তফশিল ঘোষণার দাবি জানান। অন্যথায় তিনি আইনী পদক্ষেপের হুমকি দেন।

এদিকে, ওই অভিভাবকের অভিযোগের ভিত্তিতে পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি বিদ্যালয়ের জরুরি সভা ডাকেন এবং অভিযোগের বিষয়টির আলোকে ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা সংশোধনের স্বার্থে আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন স্থগিত করার আবেদন জানানোর সিদ্ধান্ত হয়।

এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুল ইসলামকে নির্বাচনের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে আবেদনের দায়িত্ব দেয়া হয়।

প্রধান শিক্ষক মনিরুল ইসলাম জানান, পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে আবেদনপত্র নিয়ে গেলে তারা তা গ্রহণ করেননি।

এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোহাম্মদ ফারুক আহাম্মদ বলেন, ভোটার তালিকায় একজন মুসলমান ভোটার তার নামের সাথে হিন্দু নাম জুড়ে দেয়ার অভিযোগ করে প্রথমে মৌখিক ভাবে এবং পরে লিখিত আবেদন করেন। একজনের নামে ভুল থাকাকে আমরা অত্যন্ত সংবেদনশীল ও স্পর্শকাতর বলে মনে করি। তার অভিযোগের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনার অংশ হিসেবে আমরা পর্ষদ থেকে তালিকাটি সংশোধনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেই। এ জন্য একটি কমিটিও করে দিই। এ নাম ছাড়াও তালিকায় আরও ভুল থাকতে পারে বলে অনেক অভিভাবক আমাদের জানিয়েছেন। তাই আমরা তালিকাটি সংশোধনের স্বার্থে ঘোষিত নির্বাচন আপাতত স্থগিত চেয়ে আবেদন করার সিদ্ধান্ত নেই। প্রধান শিক্ষক আবেদনপত্রটি নিয়ে উপজেলা সদরে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গেলে তারা তা গ্রহণ করেনি। আমরা মনে করি এটি একজন নাগরিকের অধিকার হরণের শামিল। কারও নাম ভুল হলে সে এর প্রতিকার চাইতেই পারে। কিন্তু সেই আবেদন গ্রহণ না করার বিষয়টি খুবই হতাশার। আমরা আশা করি সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি বিবেচনা করে নির্বাচন স্থগিত করবেন।

এ বিষয়ে বুড়িচং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবদুল মান্নান জানান, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে, আগামী ১৬ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ভোটার তালিকা তৈরি করার দায়িত্ব হচ্ছে পরিচালনা কমিটির। কমিটি ভোটার তালিকা তৈরি করে জমা দিয়েছে, ইতোমধ্যে ওই তালিকা গ্রহন করা হয়েছ। তালিকা অনুযায়ী নির্বাচন করার লক্ষে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

এদিকে, প্রিজাইডিং অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবেদন গ্রহণ না করায় জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত আবেদন করেন ভুক্তভোগী ভোটার অভিভাবক আব্দুল জলিল। তাতে তিনি অভিযোগ করেন, তার নামের সাথে হিন্দু নাম অনিল যোগ করে তার ধর্মীয় চেতনায় আঘাত করা হয়েছে। তাই তিনি মনে করেন, এই ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা ও ভোটের প্রক্রিয়া বাতিল করে নতুন করে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করতে হবে। অন্যথায় ধর্মীয় চেতনায় আঘাত করার বিষয়টিকে সামনে রেখে এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হতে পারে। জেলা প্রশাসক বিষয়টি সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। যদিও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নির্বাচন স্থগিত করা হয়নি। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি