শুক্রবার,৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি করতেন তারা


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৭.১১.২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট:

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ঢাকা আরিচা মহাসড়কের পাশে নয়াডিঙ্গী এলাকার রিয়া ক্লিনিক থেকে চুরি যাওয়া নবজাতককে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে সাটুরিয়া থানা পুলিশ।

গতকাল শনিবার দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। উদ্ধার হওয়া ওই নবজাতক শিবালয় উপজেলার নালী গ্রামের জাফর ও শিউলী আক্তার দম্পতির সন্তান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নবজাতকের মা শিউলি আক্তার প্রসব ব্যথা নিয়ে গত ১৯ নভেম্বর সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়নের নয়াডিঙ্গী রিয়া ক্লিনিকে ভর্তি হন। এ সময় তার পূর্ব পরিচিত সাটুরিয়া উপজেলার জান্না খালাসীপাড়া গ্রামের ছেলে মো. নাজমুল হোসেন (২৬) এর সহযোগিতায় ম্যানেজার মো. আল মামুনের মাধ্যমে ওই ক্লিনিকে ভর্তি হন তিনি। ওইদিন সকাল সাড়ে ১১টার দিকে শিউলি আক্তার ছেলে সন্তান প্রসব করেন। খবর পেয়ে সাটুরিয়া উপজেলার কামতা গ্রামের মো. শামসুল হক (৬৫), তার ছেলে মো. ইমান আলী (৩৮), ইমান আলীর স্ত্রী ময়না বেগম (৩২), ফুকুরহাটি মাঝিপাড়া গ্রামের মো. জসিম উদ্দিনের ছেলে আক্তার হোসেন ও তার স্ত্রী মোসা. শিরিন আক্তার (২৬) ওই ক্লিনিকে উপস্থিত হন।

শিউলি আক্তার সন্তান প্রসবের এক ঘণ্টার মধ্যে ক্লিনিকের ম্যানেজার মো. আল মামুনের সহযোগিতায় নাজমুল, ইমান আলী, ময়না খাতুন ও সামছুল হক নবজাতককে নিয়ে পালিয়ে যান।

পরবর্তীতে শিউলী আক্তার বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়ে তার নবজাতককে না পেয়ে গতকাল নবজাতক চুরির অভিযোগ এনে সাটুরিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এরপর সাটুরিয়া থানা পুলিশের দুইটি টিম তাৎক্ষণিক উপজেলাসহ আশেপাশের বিভিন্ন উপজেলায় অভিযান চালায়। অভিযোগের তিন ঘণ্টার মধ্যে রাত সোয়া ১০টার দিকে সাটুরিয়া উপজেলার ফুকুরহাটি ইউনিয়নের মাঝিপাড়া গ্রামের জসিম উদ্দিনের বাড়ী থেকে নবজাতককে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ঘটনায় অভিযুক্ত নাজমুল ও শামসুল হক পলাতক রয়েছেন।

সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস বলেন, ‘এ ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি