শুক্রবার,৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


আজ ৬ বছর পর কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আ.লীগের সম্মেলন আজ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৮.১২.২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট:

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ। এ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জেলার ১০ উপজেলা জুড়ে বইছে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা। একই সঙ্গে নেতা-কর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে প্রাণচাঞ্চল্য।

বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুর ২টায় লালমাই উপজেলার বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি হয়েছিল এ জেলার সর্বশেষ সম্মেলন।

সম্মেলন উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন স্থানে ইতোমধ্যে টাঙানো হয়েছে ব্যানার-ফেস্টুন। অলি-গলি ছেয়ে গেছে পোষ্টার-বিলবোর্ডে। মোড়ে মোড়ে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। ১০ উপজেলার তৃণমূল নেতা-কর্মীদের দিন কাটছে আলোচনা ও পর্যালোচনায়। সবাই প্রতীক্ষায় আছেন কে হচ্ছেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কাণ্ডারি। তারা ভাবছেন, আগের নেতৃত্বই থাকছেন, নাকি আসছেন নতুন মুখ।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম। উদ্বোধন করার কথা রয়েছে দলের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি, জাতীয় সংসদের হুইপ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নাসিমুল আলম চৌধুরী নজরুল এমপি এবং কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম খান এমপি।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন সদর দক্ষিণ উপজেলার লালমাই সরকারি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে আ হ ম মুস্তফা কামালকে সভাপতি ও মো. মুজিবুল হককে সাধারণ সম্পাদক করে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরে একই বছরের ১ সেপ্টেম্বর ৭১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওই কমিটিতে আরও চারজনকে অন্তর্ভুক্ত করায় কমিটির সদস্য-সংখ্যা দাঁড়ায় ৭৫। এর মধ্যে ১১ জন মারা গেছেন, একজন অব্যাহতি নিয়েছেন, ১২ জন বিদেশে অসুস্থ ও নিষ্ক্রিয় আছেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি