সোমবার,৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » খেলা » বিশ্বকাপ ফাইনাল লরিসের চোখে এ যেন ‘বক্সিং ম্যাচ’


বিশ্বকাপ ফাইনাল লরিসের চোখে এ যেন ‘বক্সিং ম্যাচ’


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৯.০১.২০২৩

স্পোর্টস ডেস্ক:

কাতার বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচটি হয়তো ফ্রান্স গোলকিপার উগো লরিসের জীবনের সবচেয়ে বড় আক্ষেপ। ২০১৮ সালে রাশিয়ায় দেশের বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন। লরিসের সামনে ছিল টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক হওয়ার সুবর্ণ সুযোগ।

কিন্তু রোমাঞ্চকর ও শ্বাসরুদ্ধকর সেই ম্যাচটি দুলছিল পেন্ডুলামের মতোই, কখনো আর্জেন্টিনার দিকে, কখনো বা ফ্রান্সের দিকে। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচটি ৩-৩ গোলে অমীমাংসিত থাকে। ১২০ মিনিটের প্রাণপাত লড়াইয়ের পরও ফল আসেনি, তাই টাইব্রেকারেই নিষ্পত্তি হয় ফাইনালের। তাতে বাজিমাত আর্জেন্টিনার। নির্দিষ্ট করে বললে আর্জেন্টাইন গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্টিনেজের। পেনাল্টি শুট আউটে ৪-২ ব্যবধানে ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।
এই বিশ্বকাপ ফাইনাল অনেক ক্ষেত্রেই লরিসের জন্য ‘যন্ত্রণাময়’। টেলেফুট চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ফ্রান্সের সাবেক গোলকিপার সেই যন্ত্রণার কিছু অংশ ভাগ করে নিয়েছেন সবার সঙ্গে, ‘খেলাটা আক্ষরিক অর্থেই ছিল বক্সিং ম্যাচের মতো। আমরা ম্যাচে বক্সিং ম্যাচের মতো লড়েছি।’

টাইব্রেকারে একটি শটও ঠেকাতে না পারার বিষয়ে লরিস বলেন, ‘আমি আমার ক্যারিয়ারে কখনোই পেনাল্টি ঠেকানোর ব্যাপারে খুব সফল ছিলাম না। দুর্ভাগ্যক্রমে ফাইনালের রাতে সাফল্যটা আর্জেন্টিনার দিকেই ঝুঁকেছে। আমি চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু এর চেয়ে বেশি আর কীই-বা করতে পারতাম আমি!’

৯ জানুয়ারি লে’কিপের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায়ের কথা জানান লরিস। সেই সাক্ষাৎকারেই তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল ফাইনালে আর্জেন্টিনার গোলকিপার মার্টিনেজের মতো প্রতিপক্ষের ওপর মনস্তাত্ত্বিক কিছু করার সুযোগ লরিসের ছিল কি না।

ফ্রান্স গোলকিপার সরাসরিই জানিয়ে দেন, ‘নিজেকে হাস্যকর বানানো, প্রতিপক্ষকে উত্ত্যক্ত করা, সীমালঙ্ঘন…এগুলো আমার সঙ্গে যায় না। আমি খুবই বিবেচক ও সৎ মানুষ। আমি জানি না ওসব করে কীভাবে জেতা যায়। যদিও এভাবে হারতেও আমার ভালো লাগেনি।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি