রবিবার,২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


ভিয়েতনামে বহুতল ভবনে আগুন, শিশুসহ ৫০ জনের মৃত্যু


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৩.০৯.২০২৩

ভিয়েতনামে বহুতল ভবনে আগুন, শিশুসহ ৫০ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে অবস্থিত একটি বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডে কমপক্ষে ৫০ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে চারজনই শিশু। এছাড়া ওই দুর্ঘটনায় আরও অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মধ্যরাতের কিছু সময় আগেই সেখানে আগুন ধরে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বহুতল ভবনের পার্কিং ফ্লোর থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। ভিয়েতনাম নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল থেকে প্রায় ৭০ জনকে উদ্ধার করেছে। এর মধ্যে ৫৪ জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এক বিবৃতিতে জানানো হয়, এটি ছিল ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড।

বুধবার সকালেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। তবে জীবিতদের উদ্ধারে এখনও কাজ করে যাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় হ্যানয় শহরে অবস্থিত একটি সরু গলিতে ওই বহুতল ভবনটি অবস্থিত। সে কারণে অগ্নিকাণ্ডের পর সেখানে প্রবেশ করা বেশ কষ্টসাধ্য ছিল।

বহুতল ওই ভবনটিতে প্রায় দেড় শতাধিক মানুষ থাকতেন। তবে দুর্ঘটনায় সময় সেখানে কতজন অবস্থান করছিলেন তা এখনও পরিষ্কার নয়। ওই ভবনটি এমনভাবে তৈরি যে দুর্ঘটনার পর সেখানে থেকে সহজে কেউ বেরও হতে পারবে না।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল ভিটিভির খবরে জানানো হয়েছে, অগ্নিকাণ্ডে চার শিশু নিহত হয়েছে। ওই ভবনের কাছেই থাকেন এমন এক নারী বলেন, আমি লোকজনকে সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে শুনেছি। কিন্তু আমরা তাদেরকে যথেষ্ট সহায়তা দিতে পারিনি।

এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, আগুন থেকে বাঁচাতে একটি শিশুকে ভবনের উপরের ফ্লোর থেকে ছুড়ে ফেলতে দেখেছেন। তিনি বলেন, আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। তখন আমি কোনো কিছুর গন্ধ পাই। বাইরে বেরিয়ে দেখি আগুন লেগেছে।

তিনি বলেন, চারদিকে ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়েছিল। একটি ছোট বাচ্চাকে ছুড়ে ফেলা হয়। আমি জানি না শিশুটি বেঁচে আছে কি না। লোকজন শিশুটিকে ধরার জন্য ম্যাট্রেস নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিল। তারা শেষ পর্যন্ত শিশুটিকে উদ্ধার করতে পেরেছেন কি না তা জানা যায়নি। কী কারণে ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। পুলিশ ইতোমধ্যেই এই ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি