রবিবার,২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


ছাত্রীকে বিয়ে করতে লিঙ্গ পরিবর্তন করলেন শিক্ষিকা !


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৯.১১.২০২২

ডেস্ক রিপোর্টঃ

প্রেমে পড়লে মানুষ কী না করে!

শারীরিক চর্চার শিক্ষিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে ছাত্রীর। এক সময় পরস্পরকে ভালোবাসতে শুরু করেন সরকারি স্কুলের এই শিক্ষিকা ও ছাত্রী।

বন্ধুত্বের পর কল্পনাকে ভালোবাসতে শুরু করেন মীরা।

সরকারি স্কুলের শারীরবিদ্যার শিক্ষিকা মীরা। কল্পনা ছিল সেই স্কুলেরই ছাত্রী। খুব ভালো বন্ধু হয়ে ওঠেন মীরা আর কল্পনা।

ভারতের রাজস্থানের এক নারী শিক্ষিকার প্রেমের এমনই গল্প মন ছুঁয়ে গেল নেট-দুনিয়ায়। ভারতের রাজস্থান প্রদেশের এক স্কুল শিক্ষিকা তার লিঙ্গ পরিবর্তন করে রোববার (৬ নভেম্বর) তার এক ছাত্রীকে বিয়ে করেছেন। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।ভারতের রাজস্থান প্রদেশের এক স্কুল শিক্ষিকা তার লিঙ্গ পরিবর্তন করে রোববার (৬ নভেম্বর) তার এক ছাত্রীকে বিয়ে করেছেন। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ভরতপুরের মীরা নামের একজন শারীরিক শিক্ষার শিক্ষিকা তার ছাত্রী কল্পনা ফৌজদারের প্রেমে পড়েন। তাকে বিয়ে করার জন্য লিঙ্গ পরিবর্তনের অপারেশন করেন তিনি।

মীরা সাংবাদিকদের জানান, প্রেমে সবকিছুই ন্যায্য এবং সেই কারণেই তিনি আমার লিঙ্গ পরিবর্তন করেছেন। মীরা এখন তার নাম পরিবর্তন করে আরভ কুন্তল রেখেছেন।

স্কুলে শারীরিক শিক্ষার ক্লাস চলাকালীন কল্পনার সঙ্গে মীরার দেখা হয়। কল্পনা রাজ্য স্তরে কাবাডি খেলেন। ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে একটি আন্তর্জাতিক কাবাডি টুর্নামেন্টের জন্য দুবাই যাবেন বলে জানা গেছে।

আরভ স্কুলের খেলার মাঠে তাদের কথোপকথনের সময় কল্পনার প্রেমে পড়েছিলেন। কিন্তু তিনি সবসময় একটি ছেলে হতে চেয়েছিলেন।

আরভ জানান, তিনি মেয়ে হয়ে জন্মেছিলেন কিন্তু তিনি সবসময় ভাবতেন তিনি একজন ছেলে। তিনি সবসময় তার লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য অস্ত্রোপচার করতে চেয়েছিলেন। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে তার প্রথম অস্ত্রোপচার হয়েছিল।

কল্পনা জানান, তিনি দীর্ঘদিন ধরে আরভের সঙ্গে প্রেম করছেন। অস্ত্রোপচার না করালেও তাকে বিয়ে করতেন। তিনি অস্ত্রোপচারের জন্য আরভের সঙ্গে গিয়েছিলেন।

ভারতে এ ধরনের বিয়ে অপ্রচলিত ও বিরল হলেও তাদের বাবা-মা এই বিয়ে মেনে নিয়েছেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি