সোমবার,২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


বেড়েই চলছে চাউলের দাম


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০৯.০৬.২০১৭

পূর্বাশা ডেস্ক:

রাজধানীসহ সারাদেশে চালের বাজারে এখনো অস্থিরতা বিরাজ করছে। প্রায় সব ধরনের চালের দাম আবারও কেজি প্রতি ১ থেকে ২ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে কিছুটা শাক-সবজির দামও কমেছে। দ্রব্যমূল্যের কষাঘাতে জর্জরিত মানুষ এখন অনেকটা অসহায়। বাজার মনিটরিং করে অবিলম্বে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগীরা। আজ শুক্রবার রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, চালের বাজারে এখনো অস্থিরতা চলছে। গত ২ মাস ধরে চালের দাম বেড়েই চলছে। গত সপ্তাহেও প্রতি কেজি চালের দাম ১ থেকে ২ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে। সরু মোটা সকল প্রকার চালের দাম বেড়েছে। এদিকে রমজানের আগে বাজারে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও এখন আবার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ৪০ টাকার কমে বাজারে পেঁয়াজ নেই। রোজার প্রথম দিনেই হুট করে বেড়ে যায় রসুনের দাম। প্রথম রোজায় রোববার এক লাফে আমদানি করা এই পণ্যটির দাম প্রায় দ্বিগুণ হয়ে ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রয় হচ্ছে। আমদানি করা চীনা রসুনের দাম বাড়লেও রাজধানীর বাজারগুলোতে নাগালের মধ্যেই রয়েছে দেশি রসুন। বাজার ভেদে প্রতি কেজি দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে।

এদিকে রোজার প্রভাবে বেড়ে যাওয়া গরুর মাংস ও ব্রয়লার মুরগির দাম শুক্রবার অপরিবর্তিত রয়েছে সবজির দাম কমেছে। পটল, করলা, ধেড়স, ধুনদল, ঝিঙ্গা ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকার মধ্যে বিক্রয় হচ্ছে। আজ পিরেরবাগ, ফার্মগেটও কাঠালবাগানসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন,  পটল, ঝিঙা, ধুন্দল, করলা, বরবটি, ঢেড়স, টমেটোসহ প্রায় সব সবজির দাম ৩০ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে রয়েছে। তবে গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে বেগুন, দাম কিছুটা বেড়েছে। শুক্রবার প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ টাকা কেজি দরে। যা গত সপ্তাহে ছিল ৫০০ টাকা থেকে ৫১০ টাকা। সাদা বয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ টাকা থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে। যা গত সপ্তাহে ছিল ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা কেজি দরে। লাল কক মুরগি আগের সপ্তাহের মতোই ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে কাঁচা সবজির মধ্যে পটলের দাম কেজিতে ৫ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দরে। গত সপ্তাহে এ সবজিটি বিক্রি হয়েছিল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরে। গত সপ্তাহে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি হওয়া বেগুনের দামে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে। তবে আগের সপ্তাহের মতো ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে ধুন্দল, ঝিঙা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, টমেটো ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, শসা ২০ থেকে ২৫ টাকা, বরবটি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, কচুরলতি ৩০ থেকে ৪৫ টাকা, ডাটা ২০ টাকা আটি। পিরেরবাগ-বাজারের চাউল বিক্রয়তা মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, গত সপ্তাহে প্রতি কেজি চাউল ১ টাকা থেকে ২ টাকা। তিনি বলেন মিনিটেক ভালেটা বিক্রয় হচ্ছে ৫৮ টাকা করে আঠাইস ৫২ টাকা মুটা চাউল বিক্রয় হচ্ছে ৪৮ টাকা।

পূর্বাশানিউজ/০৯-জুন,২০১৭/ফারজানা



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি