বুধবার,১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ


কুমিল্লায় বঙ্গবন্ধুর খুনি কর্নেল রশিদের আত্মীয় পেলেন নৌকা প্রতীক!


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
০১.০১.২০২২

স্টাফ রিপোর্টার:

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি কর্নেল রশিদের আত্মীয় পেয়েছেন আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকা প্রতীক। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার ১৯নং দারোরা ইউনিয়নে নৌকা পাওয়া ওই ব্যক্তির নাম কামাল উদ্দিন খন্দকার ।

জানা যায়, কামাল উদ্দিন খন্দকার বাবা জনীস উদ্দিন খন্দকারের আপন মামাত ভাই বঙ্গবন্ধুর খুনী চান্দিনার কর্নেল রশিদ ।

এদিকে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি কর্নেল রশিদের আত্মীয় গত বছরের বিদ্রোহী হয়েও নৌকা প্রতীক পাওয়ায় দারোরা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

ইউনিয়নের একাধিক নেতাকর্মী বলেন, কামাল খন্দকার ও তার পরিবার জীবনভর বিএনপি ও জামাতের রাজনীতি করলো। একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামী শাহমোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদের সহকারী হয়েও এবার কীভাবে নৌকা পেলেন তা আমাদের বোধগম্য নয় ।

তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, এই খন্দকার কামাল বা তার পরিবার কিংবা তার বাড়ির কেউই কোনদিন আওয়ামী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না, নেই কোনও সদস্যপদও। জীবনে কখনও জয় বাংলা স্লোগানও দেননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কামাল খন্দকার বলেন, এ বিষয়ে আমার কাছে না জেনে এমপি ইউসুফ হারুনের কাছে জিজ্ঞেস করেন। কর্নেল রশিদ আঙ্কেল আমার আত্মীয় তাতে আপনাদের মাথা ব্যাথা কেনো।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে, দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাহান প্রথমে কোনও মন্তব্য করবেন না বলে জানান। পরে তিনি বলেন, ‘এলাকায় গিয়ে খবর নিলে সব সত্য জানতে পারবেন।’ কামাল উদ্দিন খন্দকার গত ২০১৬ সালের নির্বাচনে আমি যখন নৌকা নিয়ে নির্বাচন করি তখন সে চশমা প্রতীক নিয়ে আমার বিরুদ্ধে নির্বাচন করেছে। আর সে যে কর্নেল রশিদের আত্মীয় ও বিএনপি নেতা কায়কোবাদের সহকারী ছিলেন তাতে কোন সন্দেহ নেই।

মুরাদনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ আহম্মেদ হোসেন আউয়াল বলেন, ‘আমরা বিষয়টি শুনেছি। এখন দলীয় মনোনয়ন বোর্ড বিতর্কিত ও বিদ্রোহীদের মনোনয়ন দেবেনা বলে সবময় বলে আসছে অথচ বাস্তবে আমরা কি দেখতে পাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কখনই এমন কিছু মেনে নেবো না যা আমাদের দলীয় আদর্শকে কলঙ্কিত করে।’

এ বিষয়ে খন্দকার কামালের দলীয় মনোনয়ন প্রতাহার করে আওয়ামীলীগের কর্মীকে মনোনয়ন দেবার জন্য দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের কাছে একাধিক লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি