শনিবার,১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • প্রচ্ছদ » বিনোদন » বৌমা আর্জেন্টিনা সমর্থক, শ্বশুর হিসেবে স্বাগত জানিয়েছি : আসিফ


বৌমা আর্জেন্টিনা সমর্থক, শ্বশুর হিসেবে স্বাগত জানিয়েছি : আসিফ


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
১৯.১১.২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট:

রাত পোহালেই পর্দা উঠছে কাতার ফুটবল বিশ্বকাপের। প্রত্যেকেই নিজের প্রিয় দলকে নিয়ে তর্কযুদ্ধে মেতে ওঠেছেন। বিশ্বকাপের উন্মাদনা ছুঁয়ে গেছে শোবিজ অঙ্গনেও। ফুটবলপ্রেমী তারকারা পছন্দের দলের জার্সি পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন।

বাংলা গানের যুবরাজ আসিফ আকবরের প্রিয় দল ব্রাজিল। একজন বাদে তার পরিবারের অন্য সদস্যরাও একই দলের সমর্থক। আর সেই একজন হলেন গায়কের পুত্রবধূ ইসমত শেহরীন ঈশিতা। তিনি আর্জেন্টিনার সমর্থক।

বিষয়টি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আসিফ লিখেছেন, ১৯৮২ সালে ক্লাস ফোরে পড়ি। বাসায় ছয় চ্যানেলের সাদাকালো ফিলিপস টিভি। রাত জেগে খেলা নিয়ে আব্বার কোন অবজেকশন নেই, এদিকে আম্মাও ব্রাজিল সাপোর্টার। তিনি খেলা দেখেন, সঙ্গে আমরাও। বাসায় লোকজন ভরপুর, একটা উৎসবমুখর পরিবেশ। বেগম জার্মানির সাপোর্টার হলেও ব্রাজিলের প্রতি দূর্বল, রণ সরাসরি ব্রাজিল। রুদ্র মেসি সাপোর্টার হলেও বেসিক ব্রাজিল। আমার মেয়ে রঙ্গন ছোট হলেও ওর ম্যাচুরিটি বলে সেও ব্রাজিল সাপোর্টার। ভাইবোনদের মধ্যে ইতালি, জার্মানি আর ইংল্যান্ডের আনকমন সাপোর্টারদের অকার্যকর উপস্থিতি সহনীয় পর্যায়েই আছে। আর্জেন্টিনার কোন সাপোর্টার নেই ঘরে, কষ্টদায়ক ব্যাপার একটু। গতকালই খবর পেলাম, বৌমা ঈশিতা আর্জেন্টিনা সমর্থক। অবশ্য এই বিষয় নিয়ে তার ব্রাজিলিয়ান হাজবেন্ডের সঙ্গে এখনও সাংঘর্ষিক কোন কিছু দৃশ্যমান হয়নি। শ্বশুর হিসেবে আমি স্বাগত জানিয়েছি।

তিনি আরও লেখেন, চার বছর পরপর ফুটবল বিশ্বকাপ ফিরে আসে গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ আখ্যা নিয়ে। ক্রিকেট খেলা শিখেছি, নিজে স্পোর্টিং মেন্টালিটির। ইদানীংকালে খেলাধুলার মূল স্পিরিট অভদ্র লেভেলের তর্কে পৌঁছে গেছে। সমর্থকদের আক্রমন, পাল্টা আক্রমনে প্রতিমূহুর্তে স্পোর্টিং স্পিরিট নিহত হচ্ছে। অথচ বিশ্বভ্রাতৃত্বের সিম্বলিক যথার্থতা খোঁজা হয় বিশ্বসেরা এসব টূর্নামেন্টে।

গায়কের ভাষ্য, আমার আশেপাশে আর্জেন্টাইন সাপোর্টারের সংখ্যা আশঙ্কাজনক। জার্মানি, ইতালির কিছু জেনুইন সাপোর্টারও ফসিল হিসেবে টিকে আছে। আজকে আর্জেন্টাইন বন্ধুদের কাছে মুচলেকা দিয়েছি, ব্রাজিল ভালো না খেললেও তাদের সঙ্গে অসৌজন্যতা করবো না। যদি করি তাইলে তারা বাসায় খেলা দেখবে, আমাকে বয়কট করবে। এই ধরনের হুমকির মুখে আরও স্পোর্টিং হওয়ার শপথ নিতেই হয়েছে। আসুন বিনোদিত হই, খেলাকে খেলা হিসেবেই নেই। অনেক কাহিনীতে জর্জরিত বিশ্বে একটু আনন্দিত থাকি। আনন্দ করুন, সমালোচনা করুন, মজা করুন, স্মার্ট সমর্থক হিসেবে অন্য দলের সমর্থকদেরও সম্মান দিন। যে কোন স্পোর্টস নিছক বিনোদন নয়, জীবনযুদ্ধের বৈশ্বিক কাঠিন্যের বিরুদ্ধে কিছুটা আনন্দ পাওয়ার জন্য এক মহাবিদ্রোহ। পরষ্পরের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা বা শত্রুতা তৈরীর ক্ষেত্র নয়। তাই আর কোন মূর্খতা নয়, বি স্পোর্টিং।

সেই পোস্টে ব্রাজিলের জার্সি পরা একটি ছবি পোস্ট করেছেন আসিফ। জার্সিটি তিনি একজন আর্জেন্টাইন সাপোর্টারের কাছ থেকে উপহার পেয়েছেন। এ প্রসঙ্গে আসিফ লিখেছেন, জার্সি ভালোবেসে উপহার দিয়েছে আর্জেন্টাইন সাপোর্টার ছোট ভাই আরজে টুটুল। ছবিটি তুলেছেন সদ্য মেয়ের বাবা হওয়া ব্রাজিলিয়ান সক্রেটিস কিশোর দাশ। ভালোবাসা অবিরাম।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি