সোমবার,১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


স্বামী পেটানো : মিসর ১, ব্রিটেন ২, ভারত ৩


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৬.০৩.২০১৭

পূর্বাশা ডেস্ক: উপমহাদেশে প্রায় প্রতি দিনই যৌতুকের দাবিতে নির্যাতিতা বধূর খবর শিরোনামে আসে। ধর্ষণ, গার্হস্থ হিংসায় নারীদের বার বার মূল্য দিতে হয়। এটা যেমন সত্যি, তেমনই দেশের বিবাহিত পুরুষরাও যে খুব একটা শান্তিতে নেই সেটাও সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় প্রকাশ পেল।

কী সেই সমীক্ষা?

সমীক্ষায় দেখা গেছে, স্বামীকে পেটানোর ব্যাপারে ভারতীয় নারীরা একেবারে উপরের সারিতেই রয়েছেন। গার্হস্থ হিংসার কথা এলেই নারীদের কথা আগে ওঠে। এটাও ঠিক, এ ক্ষেত্রে সমাজ নারীদের প্রতি একটু বেশি সহানুভূতিশীল। তার সঙ্গত কারণও রয়েছে। তবে মুদ্রার ওপিঠে যারা দিন কাটাচ্ছেন, তাদের জন্য চিত্রটা একেবারেই সুখকর নয়। এ ক্ষেত্রে পুরুষরা সাধারণত চুপ করেই থাকেন। শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন সকলের সামনে প্রকাশ করাটা তৃতীয় বিশ্বের দেশে প্রায় ‘অপরাধ সমান’। তাই এমন ঘটনা ঘটে থাকে নিরন্তর।

সমীক্ষাটি করেছে জাতিসঙ্ঘ। সেখানে প্রকাশিত হয়েছে, মিসর এ ব্যাপারে একেবারে শীর্ষস্থানে রয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ব্রিটেন। আর তৃতীয় স্থানেই রয়েছে ভারত। এটা অস্বীকার করার জায়গা নেই যে, দেশে নারীদের এখনও বহু ক্ষেত্রে দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক মনে করা হয়। নানা ক্ষেত্রে তাদের লাঞ্ছনাও সহ্য করতে হয়। কিন্তু গার্হস্থ হিংসার ক্ষেত্রে বিবাহিত পুরুষরাও প্রায় সমান নির্যাতিত। সে সব প্রায় কিছুই প্রকাশ্যে আসে না। সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গিও অনেকাংশে দায়ী থাকে এর জন্য।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি