রবিবার,১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ


রক্তশূন্যতায় আক্রান্তদের রোজার খাবার: নিউট্রিশনিস্ট রাশেদা আফরিন মেরিনা


পূর্বাশা বিডি ২৪.কম :
২৯.০৪.২০২১


লাইফস্টাইর ডেস্কঃ

পরামর্শ দিয়েছেন রাশেদা আফরিন মেরিনা, ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশনিস্ট, এনরাউট ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

রমজানে বিভিন্ন খাবার খেলেও মূলত আয়রন সমৃদ্ধ খাবার না খাওয়ার ফলে অনেকে রক্তস্বল্পতায় ভোগেন। আবার যারা আগে থেকেই রক্তশূন্যতায় আক্রান্ত তাদের দিনে অন্তত ১২০-১৫০ মিলিগ্রাম আয়রন গ্রহণ প্রয়োজন।

আবার অনেকে প্রচুর আয়রন সমৃদ্ধ খাবার খেলেও কিছু ভুলের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়রন শরীরে শোষণ হয় না। যারা রক্তশূন্যতায় ভুগছেন; এ রমজানে তারা ইফতার, রাতের খাবার ও সেহরিতে অবশ্যই আয়রনসমৃদ্ধ খাবার রাখবেন।

ডালে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে। যা আমাদের প্রতিদিনের ৪০-৫০ শতাংশ আয়রনের ঘাটতি পূরণ করতে পারে। এছাড়া লাল মাংস, মাছ, ডিমের কুসুম, গরুর কলিজা ও বাদামেও প্রচুর আয়রন থাকে।

সবজির মধ্যে লালশাক, মিষ্টি কুমড়ো ও কুমড়োর বীজ, কচু শাক, টমেটো, খোসাসহ আলু, বিটরুট, ব্রকলি, মাশরুম ও মটরশুঁটিতে আয়রন পাবেন যথেষ্ট।

ফলের মধ্যে খেজুরই সেরা। আলুবোখারাতেও প্রচুর আয়রন থাকে। এছাড়া আপেল, কলা, কমলা, আনার, তরমুজ, লিচু এবং কালোজামেও পাবেন।

আমিষ ও সবজির উৎস থেকে পাওয়া আয়রন যেন শরীর ধরে রাখতে পারে, এ জন্য এর পাশাপাশি খেতে হবে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল। আরেকটি টিপস দিয়ে রাখি- লোহার প্যানে খাবার রান্না করলে কিন্তু খাবারের আয়রন কম নষ্ট হবে।

অন্যদিকে, চা-কফিতে পলিফেনল বেশি থাকায় তা আয়রন শোষণে বাধা দেয়। তাই যারা রক্তশূন্যতায় ভুগছেন তারা চা-কফি কম খাবেন। অতিরিক্ত ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবারও আয়রন শোষণে বাধা দেয়। গ্লুটেন সমৃদ্ধ খাবার যেমন ময়দার তৈরি নাস্তা ও পিঠা আয়রন শোষণ ঠিকমতো করতে দেয় না। পাশাপাশি আঙুর ও কর্ন পাউডারে থাকা ট্যানিনও একই কাজ করে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি